default-image

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলায় করোনা ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) অগ্নিকাণ্ড ও স্থানান্তরের সময় যে তিনজন মারা গেছেন তাঁদের নাম–পরিচয় পাওয়া গেছে।

মৃতরা হলেন কিশোর রায় (৬৮), আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ (৪৮) ও কাজী গোলাম মোস্তফা (৬৩)। তাঁদের মধ্যে কিশোর দিনাজপুরের বীরগঞ্জের বাসিন্দা এবং গোলাম মোস্তফার বাড়ি ঢাকার দক্ষিণখানে।

তিনজন রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

হাসপাতালটির এনেসথেইসওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. মোজাফ্ফর হোসেনকে প্রধান করে ১০ সদস্যের এ কমিটি গঠন করা হয়।
ঢামেকের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হকের নির্দেশে গঠিত ওই কমিটিকে ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
আজ বুধবার সকাল ৮টা ১০ মিনিটের দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে।

আইসিইউ থেকে স্থানান্তরের সময় তিনজন রোগী মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক। মারা যাওয়া রোগীদের কেউ দগ্ধ হননি বলে জানিয়েছেন তিনি।

পরিচালক নাজমুল হক জানান, আইসিইউতে আগুন লাগার পর ধোঁয়া বের হয়। হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রোগীদের সেখান থেকে বের করে আনেন। হাসপাতালের অন্য আইসিইউতে তাঁদের স্থানান্তর করা হচ্ছিল। এ সময় রোগীদের মধ্যে তিনজন মারা যান।

অক্সিজেনের লাইন থেকে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে বলেও জানান নাজমুল হক। এতে আইসিইউতে থাকা অনেক যন্ত্রপাতি পুড়ে গেছে। অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণকক্ষের কর্তব্যরত কর্মকর্তা কামরুল হাসান বলেন, তাঁদের পাঁচটি ইউনিট সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতি পরে জানানো হবে বলে জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন
রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন