বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিক্ষোভ মিছিলের আগে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘আপনারা জানেন যে ঢাকার মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই। করোনার অতিমারিতে সারা দেশ এমনিতেই নাকাল। এর সঙ্গে নতুন করে যোগ হয়েছে ডেঙ্গুর প্রভাব। কিন্তু এসব নিয়ে নগর প্রশাসনের কর্তাদের কোনো মাথাব্যথা নেই। ঢাকাবাসীর জীবনের প্রতি তাঁদের এত অনীহা কেন?’

ওই সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন নবাবপুর মালিক সমিতির সদস্য শ্যামল হোসেন, সূত্রাপুর যুব সংঘের সভাপতি মো. বুলবুল আহমেদ, নবাবপুর কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. রিয়াজ প্রমুখ।

বক্তারা আরও বলেন, ‘নগরকর্তারা দেখেও না দেখার ভান করছেন। আমাদের জীবন নিয়ে খেলা খেলছেন। আমরা বারবার নগর প্রশাসনের কাছে ধরনা দিয়েও এর কোনো পদক্ষেপই দেখতে পাইনি। এরই মধ্যে ডেঙ্গুর ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ঢাকাবাসীকে বিপদে ফেলে দক্ষিণ সিটির মেয়র তাপস প্রমোদভ্রমণে বিদেশে গিয়েছেন।’ এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মেয়র তাপসের পদত্যাগ দাবি করেন তাঁরা।

বিক্ষোভকারীরা বলেন, উন্নয়নের নামে বিভিন্ন প্রধান সড়ক ও অলিগলির রাস্তা খনন করে ফেলে রাখা হয়েছে। এসব রাস্তা দিয়ে চলাচল কষ্টসাধ্য। এসব রাস্তা এডিস মশা জন্মানোর অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। তাঁরা বলেন,‘প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই আজ আমরা রাস্তায় নেমেছি।’

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন