বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক আ ন ম ইমরান খান প্রথম আলোকে বলেন, আগামীকাল সোমবার সংবাদ সম্মেলনে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে এক ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করতে এসে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন আনোয়ার শহিদ। পরে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই দিন রাতেই তিনি মারা যান। স্বজন ও পুলিশের ধারণা, শহিদকে কল্যাণপুরের বাসা থেকে ডেকে এনে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। ছুরিকাঘাতের দৃশ্য ঘটনাস্থলের একটি বাড়ির ক্লোজড সার্কিট (সিসি) ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। সন্ধ্যা ৭টা ১৩ থেকে ৭টা ১৫ মিনিটের মধ্যে খুনের ঘটনাটি ঘটে। তখন রাস্তায় অনেক মানুষ ছিল।

স্বজনেরা জানিয়েছিলেন, বাসা থেকে বের হওয়ার সময় তিনি বলেছিলেন যে দিনাজপুর থেকে তাঁর সঙ্গে এক ব্যক্তি দেখা করতে এসেছেন। শহিদ অবসরে যাওয়ার আগে গাজীপুরের জয়দেবপুর গম গবেষণাকেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ছিলেন। এর আগে তিনি দিনাজপুরে ১৫ বছরের মতো চাকরি করেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি নীলফামারীর ডোমারে। স্বজনেরা জানান, তাঁর স্ত্রী ও সন্তান নেই। থাকতেন কল্যাণপুরে বোনের বাসায়।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন