বিজ্ঞাপন

আজ করোনা শনাক্ত হওয়া চারজনের মধ্যে দুজনের করোনা শনাক্ত হয় রাজধানীর উত্তরখানে কোরবানির পশুর হাটে। তাঁদের একজনের বয়স ২২ বছর, আরেকজন ২৩ বছর। এ ছাড়া আফতাব নগরের হাটে ৪২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি ও উত্তরার ১৭ নম্বর সেক্টরে অস্থায়ী এক হাটে ১৮ বছর বয়সী এক তরুণের করোনা শনাক্ত হয়।
ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির ব্যবস্থাপক মিরানা জামান প্রথম আলোকে বলেন, অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় উত্তরখানের হাটে দুজন এবং আফতাব নগরের হাটে একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। অন্যজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরের তুরাগ হাটে।

উত্তরখানের হাটের ইজারাদার মো. নাজমুল আলম ভূঁইয়া প্রথম আলোকে বলেন, ‘উত্তরখানের এই হাটে দুজনে করোনা শনাক্ত হয়েছে—এমন কোনো তথ্য আমার জানা নেই।’
গাবতলী হাটে ব্র্যাকের করোনা সুরক্ষা বুথ থেকে জানানো হয়, গতকাল শনিবার এখানে করোনা শনাক্তের বুথ বসানো হয়। গতকাল থেকে আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত তিনজন করোনার অ্যান্টিজেন পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছে। তবে পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল এসেছে। বুথের দায়িত্বে থাকা স্বেচ্ছাসেবী রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, গাবতলীর গরুর হাটে মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। এ পর্যন্ত কেবল তিনজনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

default-image

আজ দুপুর দুইটার দিকে গাবতলীর গরুর হাটে গিয়ে দেখা যায়, হাটে কোরবানির পশু কিনতে আসা বেশির ভাগ ক্রেতার মুখের মাস্ক আছে। তবে অনেকের মাস্ক থুতনিতে নামানো। বিক্রেতা, ব্যাপারী ও খামারিদের অধিকাংশের মুখে কোনো মাস্ক নেই। গায়ে গা ঘেঁষে ক্রেতারা কোরবানির পশু দেখছেন।
চার বন্ধু মিলে গরু কিনতে আজিমপুর থেকে এসেছেন। তাঁদের তিনজনের মুখেই মাস্ক নেই। মুখে মাস্ক নেই কেন জানতে চাইলে এই দলের একজন শিপন হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, ‘মাস্ক পকেটে আছে।’ চার বন্ধু মিলে একটা গরুর দেখছিলেন হাটের পশ্চিম কোণে। সেই গরুর ব্যাপারী চুয়াডাঙ্গার আবদুস সাত্তার। তাঁর মুখেও কোনো মাস্ক ছিল না। জানতে চাইলে বলেন, ‘মাস্ক পরলে কথা বোঝা যায় না। ক্রেতাদের দাম একটা বললে আরেকটা বোঝে। এ কারণে মাস্ক পরি নাই।’

রাজধানীর ভাটারার সাইদনগর হাটে আজ বেলা ১১টায় হাটে ব্রাকের করোনা পরীক্ষার কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম।
ব্র্যাক রাজধানীর নয়টি পশুর হাটে প্রত্যেকটি থেকে দৈনিক ১৫০টি নমুনা সংগ্রহ করে করোনার পরীক্ষা হবে। ২০ জুলাই রাত আটটা পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলবে।
ব্র্যাক জানিয়েছে, রাজধানীর নয়টি হাটে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলবে। শুধু ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে করোনাভাইরাসের উপসর্গ জ্বর, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্ট রয়েছে বা কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এসেছেন—এমন ব্যক্তিরা নমুনা দিতে পারবেন। এর জন্য সরকার নির্ধারিত ফি দিতে হবে। আগে থেকে নিবন্ধনের প্রয়োজন নেই। ফলাফল পজিটিভ হলে তা ৩০ মিনিটের মধ্যে জানিয়ে দেওয়া হবে এবং তিন থেকে চার ঘণ্টার মধ্যে ওয়েবসাইটে তথ্য আপলোড করা হবে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন