বিজ্ঞাপন

পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য গত সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে রোজিনা ইসলামকে সেখানে পাঁচ ঘণ্টার বেশি সময় আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়। একপর্যায়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। রাত সাড়ে আটটার দিকে পুলিশ তাঁকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায়। রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ জানায়, রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা হয়েছে। তাঁকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। গতকাল মঙ্গলবার রোজিনা ইসলামকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে নেওয়া হয়। শুনানি শেষে আদালত রিমান্ড আবেদন নাকচ করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার তাঁর জামিনের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

রোজিনা ইসলামের হেনস্তার ঘটনার পর তাঁর বিরুদ্ধে সোমবার রাতে শাহবাগ থানায় অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা হয়। মামলার বাদী ছিলেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী।

এ ঘটনার পর ওই দিনই শিব্বির আহমেদসহ দুই কর্মকর্তার বদলির আদেশ হয়। এরপর সেই আদেশ প্রত্যাহার করা হলো।

মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আনজুমান আরার সই করা অফিস আদেশটি আজ বুধবার জারি করা হলেও তাতে তারিখ দেওয়া হয়েছে গতকাল মঙ্গলবারের।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন