বিজ্ঞাপন

আজ শুক্রবার ঈদুল ফিতরের দিন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বেলা ১১টায় মোদিবিরোধী বিক্ষোভে গ্রেপ্তার হওয়া বাংলাদেশ ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদের নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে এক কর্মসূচিতে নুরুল এসব কথা বলেন।

এ সময় করোনার সময় সরকারের নেওয়া সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে নুরুল হক বলেন, সরকার লকডাউনের নামে তামাশা করছে। লকডাউনের দরকার নেই।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেই করোনা রোধ করা যাবে। তিনি আরও বলেন, ‘সরকার তামাশার লকডাউন দিয়েছে। মানুষ না খেয়ে মরছে। লকডাউনের কোনো দরকার নেই। এসব সিদ্ধান্ত ঘরমুখী মানুষকে ভোগান্তিতে ফেলেছে। আপনারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে সতর্ক থাকবেন। সচেতনতাই করোনা সংক্রমণ রুখে দেবে।’

বাংলাদেশ ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদের ৫৩ জন নেতা-কর্মী কারাগারে জানিয়ে ডাকসুর এই সাবেক ভিপি বলেন, গ্রেপ্তার হওয়া কেউ টাকা পাচারকারী, ব্যাংক লুটেরা বা মাফিয়া নন। তাঁরা নিম্ন মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত পরিবারের সদস্য। তাঁদের মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে রাখা হয়েছে। যারা ধর্মীয় সম্প্রীতি চান, গণতন্ত্র চান, মানুষের অধিকার চান, শান্তি চান এই মাফিয়াদের বিরুদ্ধে তাঁদের ঐক্য গড়ে তোলা উচিত। তাঁর সংগঠনের নেতা-কর্মীদের মুক্তি না দেওয়া হলে রাজপথে নামবেন বলে জানান তিনি।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন