ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ওই নারীর নাম শিফা আক্তার (২৬)।
শিফার ভাই মো. শামীম প্রথম আলোকে বলেন, বোন দেশে ফিরে তাঁর বাসাতেই উঠেছিলেন। মঙ্গলবার রাতে সাহ্‌রি খাওয়ার জন্য ডাকাডাকি করেও তাঁর কোনো সাড়া পাচ্ছিলেন না। পরে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে শিফাকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখেন।

ঘটনাটি পুলিশকে জানালে তারা এসে শিফার মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। বুধবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনেরা মরদেহ নিয়ে যান।

মো. শামীম আরও বলেন, বিয়ের সাত–আট মাসের মধ্যে শিফার স্বামী সোহেল মারা যান। তাঁর মৃত্যুর পর শিফা সৌদি আরবে চলে যান। যে বাসায় কাজ নিয়েছিলেন, সেই বাসায় মারধরের শিকার হচ্ছিলেন তিনি। গত সাত–আট মাস ধরে কোনো বেতনও পাচ্ছিলেন না। শেষমেশ তিনি দেশে চলে আসেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন