default-image

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় এবারের শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে (২১ ফেব্রুয়ারি) সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিটি সংগঠন বা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ পাঁচজন প্রতিনিধি ও ব্যক্তিপর্যায়ে একসঙ্গে সর্বোচ্চ দুজন শহীদ মিনারে ফুল দিতে পারবেন। এ ছাড়া সেদিন মাস্ক পরা ছাড়া কেউ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঢুকতে পারবেন না।

অমর একুশে উদ্‌যাপন উপলক্ষে গতকাল রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়। উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে হওয়া এই সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) এ এস এম মাকসুদ কামাল, কোষাধ্যক্ষ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানীসহ প্রশাসনের শীর্ষ ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

অমর একুশে উদ্‌যাপনের কর্মসূচি সুষ্ঠু বাস্তবায়নের জন্য সভা থেকে আইন অনুষদের ডিন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. রহমত উল্লাহকে সমন্বয়কারী, সাধারণ সম্পাদক মো. নিজামুল হক ভূঁইয়া ও সহসভাপতি সাবিতা রিজওয়ানা রহমানকে যুগ্ম সমন্বয়কারী এবং প্রক্টরকে সদস্যসচিব করে অমর একুশে উদ্‌যাপন কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়। একুশের উদ্‌যাপন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে বিভিন্ন উপকমিটিও গঠন করা হয়।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর জানিয়েছে, উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান করোনা পরিস্থিতিতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করার ওপর সভায় গুরুত্বারোপ করেন বলেন, এ বছর পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে জনসমাগম এড়িয়ে চলার বিষয়ে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখার স্বার্থে অমর একুশে উদ্‌যাপন উপলক্ষে গৃহীত সব কর্মসূচি সুশৃঙ্খল, সুষ্ঠু ও সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য উপাচার্য সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা চান। সভার শুরুতে মহান ভাষাশহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন