বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নীলক্ষেত মোড়ে আজ মঙ্গলবারের এ অবরোধ কর্মসূচির আয়োজক ছিল বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন (একাংশ), সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট (মার্ক্সবাদী), বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন (গণসংহতি আন্দোলন), বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন (জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল), গণতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিল, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন।

পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা থেকে মিছিল বের করেন আট সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। মিছিলটি বেলা পৌনে একটার দিকে নীলক্ষেত মোড়ে পৌঁছায়। এরপর নেতা-কর্মীরা আজিমপুর থেকে নীলক্ষেত অভিমুখী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তবে অ্যাম্বুলেন্সসহ কিছু জরুরি কাজের গাড়ি চলতে দেওয়া হয়। বেলা দুইটার দিকে নেতা-কর্মীরা সড়ক ছেড়ে দেন। পরে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের (মার্ক্সবাদী) কেন্দ্রীয় সভাপতি মাসুদ রানা। দাবি আদায়ে ২৯ নভেম্বর শাহবাগ মোড় অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করেন তিনি।

মাসুদ রানা জানান, দেশের পরিবহন খাতে নৈরাজ্য, লুটপাট ও দুর্নীতি চলছে। সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীরা লাভের প্রয়োজনে দ্রব্যমূল্য ও বাসের ভাড়া বাড়িয়ে কোটি কোটি টাকার মালিক হবে, এটা তাঁরা মেনে নিতে পারেন না। সরকার দেশের জনগণের সঙ্গে অন্যায় করছে। এর বিরুদ্ধে ছাত্রসমাজ সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলবে।

বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সভাপতি ইকবাল কবির জানান, হাফ পাস শিক্ষার্থীদের ন্যায্য অধিকার, এটা নিশ্চিত করতে হবে। জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে সবকিছুর দাম বাড়বে। তাই এ নিয়ে শ্রমজীবীসহ সবার কথা বলতে হবে। সরকারকে তাঁদের দাবি মানতে হবে, নইলে ক্ষমতা ছাড়তে হবে। অবিলম্বে হাফ পাসের প্রজ্ঞাপন দিতে হবে। নইলে আগামী সপ্তাহ থেকে লাগাতার আন্দোলন হবে।

ছাত্র ফেডারেশনের (গণসংহতি আন্দোলন) কেন্দ্রীয় সভাপতি গোলাম মোস্তফা জানান, পরিবহন খাতের মাফিয়াদের চাঁদার টাকা তুলতে গিয়ে জনগণের ওপর বর্ধিত ভাড়া আরোপ করছেন পরিবহন মালিকেরা। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি কোনোভাবেই চলবে না। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম কমাতে হবে।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ছাত্র ইউনিয়নের (একাংশের) সাংগঠনিক সম্পাদক মিখা পিরেগু, গণতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিলের নেতা ছায়েদুল হক প্রমুখ। সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে ঢাকা কলেজের দিকে যান বাম সংগঠনগুলোর নেতা কর্মীরা।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন