বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কে এম আমিরুল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের করোনার আতঙ্ক কাটিয়ে সময়টাকে প্রাণবন্ত ও আনন্দদায়ক করার ক্ষেত্রে এ আয়োজন অত্যন্ত সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। সংকটকে সম্ভাবনা হিসেবে দেখতে হবে। নিরস সময়কেও কাজে লাগাতে হবে।

শিক্ষার্থীদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ও সৃষ্টিশীলতার বহিঃপ্রকাশ ঘটাতেই এসএজিসি আর্ট ও ক্র্যাফট ক্লাব এবং ফটোগ্রাফি ক্লাব যৌথভাবে ‘এসএজিসি ফ্লেইয়ার হান্ট ১.০, ২০২১’ শীর্ষক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

default-image

দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মোট ৮৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় দুই হাজার প্রতিযোগী এতে অংশ নেয়। স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে প্রতিযোগীরা ট্র্যাডিশনাল আর্ট, ডিজিটাল আর্ট, ডুডল/ম্যান্ডালা, ইংকম্যানিয়া, রিডিজাইনিং বুক কভার, পেইন্টিং রিভিউ, অ্যানিমে, হ্যালুসিনেশন, অল অ্যাবাউট ক্র্যাফট, পটারহেড কুইজ, আর্ট অ্যান্ড ক্র্যাফট অলিম্পিয়াড, মোবাইল ফটোগ্রাফি, ম্যানিপুলেশন, ফটো স্টোরি, ফটোগ্রাফি কুইজসহ ১৬ ধরনের প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।

উদ্বোধনী দিনে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন আমিরুল ইসলাম। এ আয়োজনের সহেযাগিতায় ছিল প্রথম আলো।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন