শিশু অপহরণে গ্রেপ্তার ২ নারী দুই দিন করে রিমান্ডে

বিজ্ঞাপন
default-image

অপহৃত শিশুকে উদ্ধারের ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই নারীকে আজ বৃহস্পতিবার দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)। ওই দুই নারী হলেন রাশেদা খাতুন ওরফে শাহেরা ও ফাতেমা বেগম।
৫ সেপ্টেম্বর মিরপুর–১ নম্বর–সংলগ্ন শাহ আলী মাজার এলাকায় খেলা করার সময় তিন বছরের শিশু শাহাদতকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই দিন শিশুটির মা মেরি বেগম শাহ আলী থানায় অপহরণের মামলা করেন। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় ডিবির মিরপুর বিভাগ। তদন্তের পরে ডিবি পুলিশ সাভারের বেদেপল্লিসংলগ্ন ছায়াবিথি এলাকার একটি বাসা থেকে তিন বছরের শিশু শাহাদতকে উদ্ধার করে। ডিবি এ সময় রাশেদা ও ফাতেমাকে গ্রেপ্তার করে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অভিযান পরিচালনাকারী ডিবির অতিরিক্ত উপকমিশনার আশরাফুল করিম আজ প্রথম আলোকে বলেন, গ্রেপ্তার রাশেদা ও ফাতেমা বেগমকে সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানিয়ে আজ ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে পাঠানো হয়। শুনানি শেষে আদালত তাঁদের প্রত্যেকের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আশরাফুল করিম বলেন, শিশুটির মা গৃহকর্মী ও বাবা বাসচালকের সহকারী হিসেবে কাজ করেন। তাঁরা কাজে বাইরে গেলে শিশু শাহাদত ও আরেক বোনকে নিয়ে তাদের বড় ভাই শাহ আলী মাজারে খেলতে যায়। কাজ শেষে ওদের মা শাহ আলী মাজারে এসে জানতে পারেন, দুই নারীসহ তিনজন শিশু শাহাদতকে অপহরণ করে নিয়ে গেছেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ডিবির ওই কর্মকর্তা জানান, তাঁরা ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ((সিসি) ফুটেজ বিশ্লেষণ করে অপহরণকারী ও অপহৃত শিশুর অবস্থান জানতে পারেন। অপহরণে জড়িত শাহিন পালিয়ে গেছেন। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা বলেন, অপহরণকারী চক্রের হোতা রাশেদা শাহাদতকে অপহরণের জন্য তাঁর দুই সহযোগী ফাতেমা ও শাহীনকে পাঁচ হাজার টাকা করে দিয়েছেন। রাশেদা শিশু শাহাদতকে বিক্রির পরিকল্পনা করছিলেন। গত বছরের ১৯ এপ্রিল রাশেদা শাহ আলী মাজারের একই স্থান থেকে আরেকটি শিশু অপহরণ করেন। ওই ঘটনায় তিনি কারাগারে ছিলেন। সেখানে কিছুদিন থাকার পর তিনি জামিনে বেরিয়ে আবার অপহরণে যুক্ত হন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন