default-image

প্রতিটি ওয়ার্ডেই ব্যায়ামাগার নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। তরুণ সমাজকে ব্যায়ামাগার ব্যবহারের আহ্বান জানিয়ে মেয়র প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তিনি সেখানে আধুনিক সরঞ্জাম সংযোজন করবেন। পরিবেশও ভালো করার উদ্যোগ নিয়েছেন।

আজ সোমবার দুপুরে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু মিস্টার ঢাকা উন্মুক্ত বডিবিল্ডিং চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২১’–এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, প্রতিটি ওয়ার্ডে তাঁরা সামাজিক অনুষ্ঠান কেন্দ্র নির্মাণ করছেন। যেখানে ব্যায়ামাগারের জন্য আলাদা ব্যবস্থা থাকবে। বর্তমানে প্রায় ৩০টি ওয়ার্ডে ব্যায়ামাগার আছে বলেও জানান তিনি। তবে দক্ষিণ সিটির ওয়েবসাইটে বর্তমানে ২০টি ব্যায়ামাগারের কথা উল্লেখ আছে।

তরুণ প্রজন্মের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে দক্ষিণ সিটির উদ্যোগ ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা উল্লেখ করে মেয়র তাপস বলেন, ‘আমরা এরই মধ্যে আন্তওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছি এবং তা সফলভাবে সমাপ্ত হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে আমরা ফুটবল ও ক্রিকেট দিয়ে সেটা আরম্ভ করেছি এবং আমরা ভবিষ্যতে আরও তিনটি খেলা এর সঙ্গে সম্পৃক্ত করতে চাই।

বিজ্ঞাপন

মেয়র বলেন, এই শরীরগঠন (বডিবিল্ডিং) কতটা পরিশ্রম, কতটা অধ্যবসায়ের কাজ, এটি আসলে সামনে থেকে না দেখলে বোঝা যায় না। একটি ছোট ফেডারেশন হওয়া সত্ত্বেও সামাজিকভাবে তরুণদের জন্য কতটা অবদান রাখা যায়—এখানে না এলে তিনি সেটা অনুধাবন করতে পারতেন না।

এর আগে মেয়র তাপস বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। অনুষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু মিস্টার ঢাকা উন্মুক্ত বডিবিল্ডিং চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২১’–এর আয়োজক কমিটির সভাপতি ও ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সারোয়ার হাসান, বাংলাদেশ বডিবিল্ডিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান মো. নুরুল ইসলাম খান, ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. আরিফ হোসেন, ৫০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুম মোল্লা, ১০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মারুফ আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন