বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নজিবুল্লাহর সঙ্গে কথা হতে হতেই জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি স্টেশন ত্যাগ করে। নির্ধারিত সময়ের ২ মিনিট পর ট্রেনটি স্টেশন ত্যাগ করে।

আজ সোমবার কমলাপুর রেলস্টেশনে ঈদযাত্রার ষষ্ঠ দিন। কমলাপুর থেকে ঈদের ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে গত বুধবার থেকে। আজ ভোর থেকে স্টেশনে যাত্রীর চাপ গত পাঁচ দিনের তুলনায় অনেকটাই কম। গতকাল ঈদের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে আজকের রেলের টিকিট বিক্রি হয়েছে গতকাল একযোগে অনলাইন ও কাউন্টারে।

সকালে উত্তর বাড্ডার বাসা থেকে কমলাপুর রেলস্টেশনে এসে কাউন্টার থেকেই টিকিট পেয়েছেন জয়ন্তিকা এক্সপ্রেসের যাত্রী মাইনুর রশীদ। তিনি এক ছেলে, এক মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঈদ করতে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘স্টেশনে এসেই কাউন্টারে টিকিট পেয়েছি। করোনার কারণে গত দুই বছর বাড়ি যাইনি। এবার বাড়ি গিয়ে পরিবারের সঙ্গে অনেক আনন্দ করব। এবার প্রথমে টিকিট পাইনি। ঈদ এক দিন পেছানোয় আজ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

default-image

সকাল থেকে বেশির ভাগ ট্রেন সময়মতো কমলাপুর রেলস্টেশন ছেড়েছে। তবে কয়েকটি পথের ট্রেন ২০ থেকে ৩০ মিনিট দেরিতে স্টেশন ছাড়ে। আর দুটি পথের ট্রেন ৪০ মিনিট দেরিতে স্টেশন ত্যাগ করে।

কমলাপুর রেলস্টেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভোর থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত আন্তনগর, লোকাল মেইলসহ ২৪টি ট্রেন দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রী নিয়ে ছেড়ে গেছে। আজ মেইল ট্রেন, আন্তনগর ও কমিউটার ট্রেন মিলিয়ে ১২২টি ট্রেন কমলাপুর রেলস্টেশন যাতায়াত করবে। এসব ট্রেনে ৫৩ হাজার যাত্রী ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।

কমলাপুর রেলস্টেশন সূত্রে জানা গেছে, চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু ট্রেনটি ৪০ মিনিট দেরি করে সকাল ৭টা ২০ মিনিটে কমলাপুর স্টেশন ত্যাগ করে। খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা। সেটিও প্রায় ৪৫ মিনিট দেরি করে নয়টার দিকে স্টেশন ত্যাগ করে।

কমলাপুর রেলস্টেশনের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আমিনুল হক বলেন, বিগত সময়ের তুলনায় এবার সবচেয়ে সুন্দর ঈদযাত্রা হয়েছে। ঈদযাত্রার প্রতিটি দিন বেশির ভাগ ট্রেনই সময়মতো ছেড়ে গেছে। আজকে স্টেশনে দুটি ট্রেন ৪০ মিনিট করে দেরিতে ছেড়েছিল। তবে বাকি ট্রেনগুলো সময়মতোই ছেড়েছে। অনেক যাত্রী আজকে আসছেন। তবে যাত্রীর চাপ একেবারেই কম। যাত্রীদের অসুবিধা যাতে না হয়, সে চেষ্টাই করা হচ্ছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন