বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অভিভাবকদের একজন তাহমিদা আফরোজ বলছিলেন, তাঁর মেয়ে আসফিনুর ইসলাম এখানে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। সকাল নয়টায় তাঁর ক্লাস থাকলেও তিনি ৮টা ৪০ মিনিটেই বাচ্চাকে নিয়ে এসেছেন। তাহমিদা আফরোজ বলেন, বাচ্চা স্কুলে আসতে পেরে অনেক খুশি। গতকাল থেকেই সে প্রস্তুত হয়ে ছিল।

default-image

বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুলের এ চিত্র দেখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অবস্থিত উদয়ন উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসে দেখা গেল, স্কুলের সামনের সড়কের এক পাশে বাঁশের ব্যারিকেড দেওয়া। বাইরে তখন অভিভাবকেরা অপেক্ষা করছিলেন। তখন সেখানে পঞ্চম শ্রেণির দুটি ক্লাস শেষ হয়ে গেছে। ভেতর থেকে সারিবদ্ধভাবে শিক্ষার্থীরা বের হচ্ছিল। সবার মুখে মাস্ক। সাবিরা সাদেক এই স্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে। ক্লাস শেষে বের হয়ে আসার পর জানতে চাইলে বলল, ক্লাসে ঢুকতে পেরে তার অনেক ভালো লাগছে। একই ক্লাসের ছাত্র তাজিন আহমেদের মুখেও ভালো লাগার অভিব্যক্তি।

default-image

শিক্ষার্থীরা যখন ক্লাস শেষে বের হচ্ছিল, তখন উদয়ন উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ জহুরা বেগম নিজেই অন্য শিক্ষকদের নিয়ে এসব তদারক করছিলেন। জহুরা বেগম প্রথম আলোকে বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই নিয়েছেন।

উদয়ন স্কুল থেকে আজিমপুর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ। সেখানে এসে দেখা গেল, তাপমাত্রা মেপে মেপে শিক্ষার্থীদের ভেতরে ঢোকানো হচ্ছে। ভেতরে তখন সারিবদ্ধভাবে স্কাউটের সদস্যরা রাস্তার দুই পাশে শৃঙ্খলা বজায় রাখার কাজে ব্যস্ত। এখানে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির পরিদর্শনে আসার কথা।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন