বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রাসেল গুলি ছোড়ার কথা স্বীকার করেছেন।
২ জানুয়ারি রাত আটটার দিকে নাজমুল হাসানকে গুলি করা হয়। এরপর আহত অবস্থায় তাঁকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে তিনি মারা যান।

পুলিশ জানিয়েছে, নাজমুল ও আপেল কয়েকজন সঙ্গীসহ ডাবতলা মোড়ে আড্ডা দিচ্ছিলেন। এ সময় দুটি মোটরসাইকেলে আসা দুর্বৃত্তরা তাঁদের লক্ষ্য করে কয়েকটি গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়। এ সময় নাজমুল ও আপেল গুলিবিদ্ধ হন।

এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা নাজমুল হাসানের স্ত্রী স্বর্ণালী বেগম বাদী হয়ে সাতজনকে আসামি করে হত্যাচেষ্টার মামলা করেছিলেন। এতে প্রধান আসামি করা হয় মালগ্রাম এলাকার স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা রাসেলকে। রাসেলের বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় ছয়টি মামলা রয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন