default-image

রাজধানীর বায়তুল মোকাররম এলাকায় গত ২৬ মার্চ সংঘর্ষ ও সহিংসতার ঘটনায় হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। রাজধানীর পল্টন থানায় গতকাল সোমবার রাতে মামলাটি হয়।

মামলায় আসামি হিসেবে মামুনুল হকসহ ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া দুই থেকে তিন হাজার ব্যক্তিকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। মামলায় এক নম্বর আসামি করা হয়েছে মামুনুল হককে।

মামলার বাদী খন্দকার আরিফ-উজ-জামান। তিনি নিজেকে ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২৬ মার্চ দুপুর সাড়ে ১২টায় মুসল্লিদের সঙ্গে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পবিত্র জুমার নামাজ আদায় করতে যান বাদী। জুমার নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হয়ে উত্তর গেটের সিঁড়িতে কয়েক হাজার উচ্ছৃঙ্খল ব্যক্তির জমায়েত দেখতে পান তিনি। তাঁরা জামায়াত-শিবির-বিএনপি-হেফাজতের লোক ছিল। জমায়েত থেকে রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী স্লোগান দেওয়া হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের প্রত্যক্ষ নির্দেশে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের জন্য দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র, দা, ছোরা, কুড়াল, কিরিচ, হাতুড়ি, তলোয়ার, বাঁশ, লাঠি, শাবল, রিভলবার, পাইপগানসহ অন্যান্য অস্ত্র নিয়ে অতর্কিতে বাদীসহ অন্য মুসল্লিদের ওপর হামলা চালানো হয়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদ ঘিরে ২৬ মার্চ জুমার নামাজের পর বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘাত-সংঘর্ষ-সহিংসতার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পল্টন মডেল থানায় পুলিশের পক্ষ থেকে আগেই মামলা করা হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন