default-image

রাজধানীর কেরানীগঞ্জে ৬ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ১০ বছর বয়সী এক শিশুকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা-পুলিশ শিশুটিকে তার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে। আজ বুধবার শিশুটিকে টঙ্গীর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। ভুক্তভোগী শিশুটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি রয়েছে।


ঢাকার সদর কোর্টের পরিদর্শক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, গ্রেপ্তার শিশুদের আনা-নেওয়ার আলাদা কোনো ব্যবস্থা নেই। তাই শিশুটিকে বয়স্ক আসামিদের সঙ্গেই প্রিজন ভ্যানে করে প্রথমে কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়। কাশিমপুর কারাগার কর্তৃপক্ষ শিশুটিকে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

কেরানীগঞ্জ থানা-পুলিশ আদালতে জমা দেওয়া প্রতিবেদনে শিশুটির বয়স উল্লেখ করেছে ১২ বছর। আর মামলায় শিশুটির বয়স দেখানো হয়েছে ১৪ বছর। তবে জন্মসনদ অনুযায়ী, শিশুটির জন্ম ২০১০ সালের ৩ সেপ্টেম্বর। অর্থাৎ তাঁর বর্তমান বয়স ১০ বছর ২ মাস।

এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মাইনুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ছয় বছরের শিশুটিকে ধর্ষণ করার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। মামলার পর শিশুটিকে গ্রেপ্তার করা হয়।
আদালতে পাঠানো কাগজে শিশুর বয়স ১২ বছর উল্লেখ করার বিষয়ে ওসি কাজী মাইনুল ইসলাম বলেন, শিশুটির বয়স নির্ধারণের ক্ষেত্রে জন্মসনদ তাঁরা সংগ্রহ করেননি। তবে শিশুটির জন্মসনদ সংগ্রহ করা হবে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কেরানীগঞ্জ মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তামিমা আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটির বয়স নির্ধারণের জন্য প্রয়োজনে ডিএনএ পরীক্ষা করা হবে। তিনি দু-এক দিনের মধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন। সব তথ্যই তিনি সংগ্রহ করবেন।

বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তার শিশুটি চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। তার বাবা আট বছর আগে মারা গেছেন।
শিশুটির বয়স সম্পর্কে কেরানীগঞ্জের কলাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য কাবুল মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটিকে তিনি ভালোভাবে চেনেন। তার বয়স বড় জোর ১০ বছর। তাঁর জানামতে, এই শিশুটির পরিবারের সঙ্গে ৬ বছরের শিশুর পরিবারের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছে। মামলাও রয়েছে।

ছয় বছর বয়সী ওই শিশুর মায়ের করা মামলার এজাহারের তথ্য অনুযায়ী, শিশুটি ধর্ষণের শিকার হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার বেলা আড়াইটায়। শিশুটি বাড়ির পাশে খেলতে গিয়েছিল। তখন শিশুটিকে একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। শিশুটি কান্নাকাটি করলে ওই শিশুটি (আটক হওয়া) তাকে ছেড়ে দেয়। এ মামলার আসামির তালিকায় ওই শিশু ছাড়া তার চাচাতো ভাই ২২ বছর বয়সী আরেক তরুণকে আসামি করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে ৯০ হাজার টাকা দামের সোনার চেইন ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ আনা হয়।

তবে গ্রেপ্তার শিশুটির আইনজীবী কামাল হোসেন মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটির বয়স মাত্র ১০ বছর। ধর্ষণ মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। হয়রানির উদ্দেশ্যে এই মামলা।

মন্তব্য পড়ুন 0