default-image

আমেরিকার তিন বৃহত্তম গাড়ি নির্মাণ কোম্পানির ইউনাইটেড অটোমোবাইল ওয়ার্কার ইউনিয়ন একত্রে দুই সপ্তাহের জন্য গাড়ি নির্মাণ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ফ্যাক্টরি ওয়ার্কারদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে গতকাল বুধবার সকালে ওয়ার্কার ইউনিয়নের নেতারা এ ঘোষণা দেন। যে সময় এ ঘোষণা এল, সে সময় আমেরিকার শেয়ার মার্কেটে গাড়ি কোম্পানির সব শেয়ারে বড় ধরনের ধস নেমেছে।

জেনারেল মটরস, ফোর্ড মটরস ও ফিয়েট ক্রাইসলার অটো মোবাইলস তিন কোম্পানির শ্রমিকনেতারা গত মঙ্গলবার রাতে এক সভা শেষে এ সিদ্ধান্ত নেয়। নেতারা জানান, কোম্পানি শ্রমিকের স্বাস্থ্য, পরিষ্কার–পরিচ্ছন্নতা কাজের পরিবেশ ও ফ্যাক্টরির খাবার ও আড্ডা দেওয়ার স্থানে অতিরিক্ত সুরক্ষাব্যবস্থা নিতে বদ্ধপরিকর।

default-image

গাড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন ইউনাইটেড অটোমোবাইল ওয়ার্কার ইউনিয়ন ‘ইউএডব্লিউ’ সেন্টারস ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) পরামর্শ মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজের পরিবেশ নিশ্চিত করবেন। ইউএডব্লিউর প্রেসিডেন্ট রয় গ্যাম্বেল আরও বলেন, তিন কোম্পানির নেতারা একমত যে যতক্ষণ পর্যন্ত ফ্যাক্টরির পরিষ্কার–পরিচ্ছন্ন পরিবেশ নিশ্চিত হয়েছে, তত দিন আংশিকভাবে ফ্যাক্টরি চলবে। একসঙ্গে যেন সবাই কাজে না ঢুকতে বা বের হতে হয়, সে ব্যাপারে কাজের শুরুর সময় ভিন্ন হবে।

জিএম, ফোর্ড মটরস ও এফসিএ—এই তিন প্রতিষ্ঠানের কর্তাব্যক্তিরা এ ব্যাপারে শ্রমিকনেতাদের সঙ্গে বসে বিস্তারিত জানাবেন বলে জানা যায়। মিশিগানে তিন প্রতিষ্ঠানে ১ লাখ ৫১ হাজার শ্রমিক কাজ করেন।

শ্রমিকনেতা গ্যাম্লার জানান, আমেরিকার তিন গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে ই–মেইলের মাধ্যমে দুই সপ্তাহ বন্ধের সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। এ ছাড়া ইউরোপের যেসব কোম্পানি আমেরিকায় গাড়ি নির্মাণ করছে করোনাভাইরাস নিয়ে তাদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

default-image

বুধবার স্টক মার্কেটে বড় ধরনের ধস নেমেছে। জেনারেল মটরসের স্টক গত ১৮ দিনে ৩৫ থেকে নেমে এখন ১৭ ডলার, ফোর্ড মটরসের স্টক গত ১৮ দিনে ৮ থেকে নেমে সাড়ে ৪ ডলারে থেমেছে। ফিয়েট ক্রাইসলার ১৩ থেকে নেমেছে ৭ ডলারে। অন্যদিকে ইলেক্ট্রিক গাড়ি কোম্পানি টেসলায় করোনা আঘাত হেনেছে আরও ভয়াবহভাবে, শেয়ার ৯১৭ থেকে নেমেছে ৩৬১ ডলারে।

গত সোমবার থেকে সব গাড়ি কোম্পানির প্রকৌশলীরা বাসা থেকে কাজ করছেন। ইমারজেন্সি না হলে প্রকৌশলীদের অফিসে যেতে বারণ করা হয়েছে। বাংলাদেশি গাড়ি প্রকৌশলী ড. মোহাম্মদ নাজমুল আনোয়ার জানালেন, করোনাভাইরাস গাড়ি নির্মাণে বেশ শক্তভাবে আঘাত হেনেছে। মানে সবার আগে নিজের ও পরিবারের স্বাস্থ্য নিশ্চয়তা। তাই সবাই বাসা থেকেই কাজ করছি।

অন্যদিকে গাড়ির সাপ্লায়ারের ঊর্ধ্বতন এক ফাইন্যান্স কর্মকর্তা ইয়াসের সাত্তার জানালেন, করোনাভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে বেশ সময় লাগবে। তিনি আরও জানান, করোনাভাইরাসের কারণে অর্থনীতির এ মন্দায় বেশ কিছু গাড়ি নির্মাণ ও গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাণ কোম্পানি দেউলিয়া ঘোষণা করবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0