বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

টিকা কারা পাবেন, তা নির্ধারণের দায়িত্বে রয়েছে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়। আর টিকা ব্যবস্থাপনার কাজ করছে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম জিয়াউল হায়দার প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রথম ধাপে শুধু এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে। এ জন্য কোনো অনলাইন নিবন্ধন লাগবে না। কারা টিকা পাবেন, তা আমরা নির্ধারণ করে দিয়েছি। তাদের তালিকা সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। টিকা নিবন্ধনের জন্য তাঁদের একটা কার্ড দেওয়া হবে। পরবর্তী ডোজের টিকার জন্য ওই কার্ড নিয়ে আসতে হবে।’

এদিকে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তত্ত্বাবধানে আজ সোমবার টিকাদানকারী নার্সদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। শিক্ষার্থীদের টিকাদানের ক্ষেত্রে যাবতীয় সাবধানতা অবলম্বন করার নির্দেশ দেওয়া হয়। প্রথম দিন চট্টগ্রাম কলেজের ৭৫০ জন চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুল কেন্দ্রে, বাওয়া স্কুল মরিস ব্রাউন স্কুল কেন্দ্রে ও সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা মির্জা ইস্পাহানী স্কুল কেন্দ্রে টিকা নেবেন। নগরে এইচএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৩৫ হাজার।

সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, টিকাদানের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। শুধু এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ফাইজারের এই টিকা দেওয়া হবে।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন