default-image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সচেতনতা কার্যক্রম শুরু করেছে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ। নগরের ১৬ থানা-পুলিশের উদ্যোগে আজ রোববার এই কার্যক্রম শুরু হয়। পথচারী ও বাসের যাত্রীদের মধ্যে যাঁরা মাস্ক পরে নেই, তাঁদের পুলিশ মাস্ক পরিয়ে দিচ্ছে। পুলিশ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে মানুষকে সচেতন করতে মাইকিং করছে।

নগরের সিআরবি শিরীষতলায় নগর পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, প্রথম ধাপে করোনা মোকাবিলায় নগর পুলিশ যেভাবে সফল হয়েছে, এবারও তা করতে হবে। মাস্ক পরতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। মানুষের মধ্যে এই সচেতনতা ছড়িয়ে দিতে হবে পুলিশকে। নইলে তার পরিণতি ভয়াবহ হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ কমিশনার বলেন, প্রথমবারের মতো কঠোর না হলেও আস্তে আস্তে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর কাজ শুরু করেছে। সচেতন হলেই করোনা দূর করা যাবে।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে নগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ট্রাফিক পুলিশ, বিভিন্ন ব্যবসায়িক ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

নগরের ডবলমুরিং থানার পুলিশের উদ্যোগে ১০০টি স্পটে এক লাখের বেশি মাস্ক বিতরণ করা হয়। বিতরণকালে নগর পুলিশের উপকমিশনার (পশ্চিম) আবদুল ওয়ারীশ বলেন, করোনা থেকে বাঁচতে হলে মাস্কের বিকল্প নেই।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন করোনা মোকাবিলায় নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করে বক্তব্য দেন। পুলিশের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নগরের ১৬ থানা-পুলিশ করোনা সচেতনতা কার্যক্রম শুরু করে।

এদিকে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৯১০টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে ১১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট সংক্রমিত হয়েছে ৩৭ হাজার ৫৪১ জন। এ সময়ে করোনায় কেউ মৃত্যুবরণ করেনি। সংক্রমিত ব্যক্তিদের মধ্যে নগরের ১০০ জন।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন