default-image

বগুড়ায় করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণে নতুন করে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গে মারা গেছেন আরও তিনজন। গতকাল শুক্রবার রাত নয়টা থেকে আজ শনিবার সকাল নয়টা পর্যন্ত বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চারজন রোগী মারা যান।

এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ২০৮। আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮ হাজার ৭৬৫। আজ বেলা ১১টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত ৪২ জন।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মুখপাত্র জাহাঙ্গীর আলম প্রথম আলোকে বলেন, আজ সকাল ১০টার দিকে করোনা ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) কোভিড-১৯–এ আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন সাইফুল ইসলাম (৬৫) নামের এক ব্যক্তি। তিনি বগুড়া শহরের জলেশ্বরীতলা এলাকার বাসিন্দা।

হাসপাতাল প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, জ্বর, শ্বাসকষ্টসহ করোনার নানা উপসর্গ নিয়ে তিনি ২৫ নভেম্বর হাসপাতালে ভর্তি হন। ওই দিনই তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে মেডিকেল কলেজের আরটিপিসিআর ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়। সেখানে তিনি কোভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হন। আজ সকাল দশটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

বিজ্ঞাপন

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মুখপাত্র জাহাঙ্গীর আলম আরও বলেন, করোনার উপসর্গ নিয়ে গতকাল রাত নয়টা থেকে আজ সকাল নয়টা পর্যন্ত হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজন রোগী মারা গেছেন।
এর মধ্যে গতকাল রাত নয়টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন আবদুল হান্নান (৬০)। তাঁর বাড়ি বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ঘোড়দৌড় গ্রামে। ২১ নভেম্বর থেকে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

এ ছাড়া আজ সকাল পৌনে ১০টার দিকে করোনার উপসর্গে মারা গেছেন কমল সরকার (৬১)। তিনি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা। তিনি করোনার উপসর্গ নিয়ে গতকাল এ হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের আরটিপিসিআর ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। তবে ফলাফল আসার আগেই তিনি মারা গেছেন।

অন্যদিকে করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মারা গেছেন আবুল কাশেম (৯০)। তিনি শহরের নারুলী এলাকার বাসিন্দা। করোনার উপসর্গ নিয়ে গতকাল তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে মেডিকেল কলেজের আরটিপিসিআর ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। তবে প্রতিবেদন এখনো আসেনি।

মন্তব্য করুন