বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মোলভির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে আতিকুজ্জামান বলেন, এ ওষুধ চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া খাওয়া যাবে না। ১৮ বছরের নিচে কেউ এ ওষুধ খেতে পারবে না। অন্তঃসত্ত্বা নারী এ ওষুধ খেতে পারবেন না। তিনি আরও বলেন, করোনায় যাঁরা পজিটিভ, তাঁরা এ ওষুধ খেতে পারবেন। উপসর্গ দেখার পাঁচ দিনের মধ্যে মোলভির খেতে হবে। এতে শতভাগ কার্যকারিতা মিলবে। সকালে চারটি ও রাতে চারটি করে ওষুধ খেতে হবে। প্রতি পিস ওষুধের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ টাকা। ২ হাজার টাকার প্যাকেজ। এ দাম মানুষের ক্রয়সীমার মধ্যে রয়েছে। আতিকুজ্জামান বলেন, এ ওষুধ বিদেশে রপ্তানির পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের। মুখে খাওয়ার এ ওষুধ রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি কমিয়ে আনবে বলে জানা তিনি।

এর আগে ৪ নভেম্বর মোলনুপিরাভির রোগীদের জন্য ব্যবহারের অনুমোদন দেয় যুক্তরাজ্যভিত্তিক ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউকেএমএইচআরএ। ৮ নভেম্বর স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডকে মোলনুপিরাভির উৎপাদন ও বাজারজাত করার অনুমোদন দেয়। দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ওষুধ কোম্পানি এসকেএফ ও বেক্সিমকোও বাজারজাতের অনুমোদন পেয়েছে।

করোনাভাইরাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন