default-image

সিঙ্গাপুরে বহুল পরিচিত মোস্তফা শপিং সেন্টার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত শপিং সেন্টার বন্ধ রাখবে মোস্তফা সেন্টার কর্তৃপক্ষ।

গত বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) মোস্তফা শপিং সেন্টারে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই নিয়ে মোস্তফা সেন্টার থেকে ১১ জন করোনাভাইরাসে রোগী শনাক্ত করা হলো।

গত ২০ বছরের মধ্যে এক দিনের জন্যও বন্ধ রাখা হয়নি এই শপিং সেন্টার। ক্রেতাসাধারণের জন্য দিনরাত ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকে মোস্তফা শপিং সেন্টার।

সিঙ্গাপুরে বসবাসরত সব বাসিন্দা ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা পর্যটকেরাও কেনাকাটার জন্য বেছে নেন এ শপিং সেন্টারকে। বাংলাদেশিদের জন্য দ্বিতীয় গুলিস্তান নামে পরিচিত মোস্তফা সেন্টার এলাকা। সাপ্তাহিক অথবা সরকারি যেকোনো ছুটির দিন থাকে বাংলাদেশিদের উপচে পড়া ভিড় থাকে এ শপিং সেন্টারে।

নিত্যপ্রয়োজনীয় সব জিনিসপত্র সুলভ মূল্যে পাওয়ার কারণে ক্রেতাসাধারণের ভিড় লেগেই থাকে সব সময়। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে শপিং সেন্টার বন্ধ করতে বাধ্য হলো কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বের খ্যাতিমান চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের চোখের ঘুম কেড়ে নেওয়া করোনাভাইরাস থামিয়ে দিয়েছে বিশ্বের বড় বড় নামীদামি প্রতিষ্ঠান। শক্তিশালী দেশগুলো হিমশিম খেয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে প্রতিদিন।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ১১৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪৮ জন বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী আছে। চারজন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে কর্মক্ষেত্রে যোগদান করেছে। বাকিরা এখনো চিকিৎসাধীন। আক্রান্ত ব্যক্তিদের অধিকাংশ ইউরোপ, আমেরিকাসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ শেষে ফিরে আসা ব্যক্তি।

default-image

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সিঙ্গাপুর সরকার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বলেছে। জনসমাগম এড়িয়ে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জনসাধারণকে সরকারের আনীত সব নির্দেশনা মেনে চলার জন্য বলা হয়েছে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সিঙ্গাপুর সরকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে। এখন পর্যন্ত সিঙ্গাপুরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0