অতিরিক্ত নিবন্ধন ফি ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে ঢাকার কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের তিন শতাধিক এসএসসি পরীক্ষার্থী। গতকাল রোববার দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে দফায় দফায় বিক্ষোভ করে তারা।
পরীক্ষার্থীদের অভিযোগ, নিবন্ধন ফি বাবদ বোর্ড নির্ধারিত টাকার বাইরেও প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে উন্নয়ন ফি, সেশন ফি, কোচিং ফি ও মডেল টেস্টের নামে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করেছে। রোববার অতিরিক্ত ওই টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য অভিভাবকসহ শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে ডাকা হয়। কিন্তু দুপুরের দিকে টাকা ফেরত না দিয়ে উল্টো শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করলে তারা বিক্ষোভ শুরু করে।
আফসানা আক্তার নামের এক পরীক্ষার্থী অভিযোগ করে, ‘শুনেছি, পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন ফি প্রায় ১৪০০ টাকা। আমার কাছে পাঁচ হাজার টাকা দাবি করলে আমি চার হাজার ৭০০ টাকা জমা দিয়ে নিবন্ধন করেছি।’ সে জানায়, সম্প্রতি উচ্চ আদালত বোর্ড নির্ধারিত ফির বাইরে নেওয়া অতিরিক্ত টাকা ফেরতের নির্দেশ দিয়েছেন। পত্রিকায় এ সংবাদ দেখে তারা কর্তৃপক্ষের কাছে অতিরিক্ত টাকা ফেরত চায়। কিন্তু বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ টাকা ফেরত না দিয়ে বিভিন্ন টালবাহানা করছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক পরীক্ষার্থী জানায়, কোচিং বন্ধ থাকলেও কর্তৃপক্ষ কোচিং ফি নিয়েছে।
তবে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কে এম ইলিয়াস আলী বলেন, ‘আমরা পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো অতিরিক্ত টাকা আদায় করিনি। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের মানবিক ও বাণিজ্য শাখায় ৪ হাজার ৫২০ টাকা এবং বিজ্ঞান শাখার জন্য ৪ হাজার ৫৮৫ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, যদি প্রশাসন টাকা ফেরত দিয়ে দিতে বলে তবে তাঁরা পরীক্ষার্থীদের টাকা ফেরত দিয়ে দেবেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল বাশার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মানবিক ও বাণিজ্য শাখায় ওই টাকা নির্ধারণ করে দেওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন। তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া গেলে এ বিষয়ে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি দেওয়া হবে। বোর্ড এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেবে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন