বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, বুধবারই সখিপুর এলাকা থেকে আবদুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বুধবার শরীয়তপুর সরকারি হাসপাতালে ওই নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়।
ভুক্তভোগী ওই নারী প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার শিশু সন্তানকে আটকে রেখে ভয় দেখিয়ে আমার সর্বনাশ করেছে। আমি অন্তঃসত্ত্বা বলার পরও রেহাই পাইনি। স্বামী জানার পর আমাকে ভুল বুঝেছেন। পরিবারে আমি অসম্মানিত হচ্ছি।’
ওই নারীর স্বামী বলেন, ‘আবদুর রহমান আমাদের পূর্ব পরিচিত। এ কারণে আমার স্ত্রী তাঁর সঙ্গে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরতে ভরসা করেছিল। কিন্তু সে এমন সর্বনাশ করবে তা ভাবতেও পারছি না।’
সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, অন্তঃসত্ত্বা এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। আদালতের মাধ্যমে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন