পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় ২০১৪ সালে ৪৫ জন আত্মহত্যা করেছেন। এঁদের মধ্যে নারী-পুরুষ সংখ্যায় প্রায় সমান। গত মাসেও এ উপজেলায় চারজন আত্মহত্যা করেছেন।
২০১৩ সালে এ উপজেলায় ৪৪ জন আত্মহত্যা করেন। ২০১২, ২০১১, ২০১০ সালে এর সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ৩৬, ৩০ ও ২০ জন। পিরোজপুরের অন্য উপজেলাগুলোর চেয়ে মঠবাড়িয়ায় বেশি মানুষ আত্মহননের পথ বেছে নেন।
জেলার থানাগুলোর তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালে পিরোজপুর সদর উপজেলায় ২৪ জন, নাজিরপুরে ৩০ জন, নেছারাবাদে ১৮ জন, ভান্ডারিয়ায় ১৪ জন, কাউখালীতে ছয়জন ও জিয়ানগরে পাঁচজন আত্মহত্যা করেছেন।
মঠবাড়িয়া থানার পুলিশ ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ১৬ থেকে ৩৫ বছরের নারী-পুরুষেরাই বেশি আত্মহত্যা করছেন। তবে এ তালিকায় শিশু ও বৃদ্ধও আছেন।
২০১৪ সালে যে ৪৫ জন আত্মহত্যা করেছেন, তাঁদের ২৩ জন নারী ও ২২ জন পুরুষ।
এর মধ্যে সাতজন বৃদ্ধ ও নয়জন শিশু। গত মাসে (জানুয়ারি) একজন নারী (২৪), একজন বৃদ্ধ ও দুজন যুবক আত্মহননের পথ বেছে নেন।
আত্মহত্যা করেছেন, এমন ৩০ জনের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের অনেকে পারিবারিক অশান্তি, নির্যাতন, দারিদ্র্য, মাদকাসক্ত হওয়ার কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। শিশু ও কিশোরীরা অভিভাবকের বকাঝকায় অভিমানে আত্মহত্যা করে। কিশোর-কিশোরীদের ক্ষেত্রে প্রেমঘটিত বিষয় ও উত্ত্যক্ত হওয়ার ঘটনা আত্মহত্যার প্ররোচক হিসেবে কাজ করেছে। বৃদ্ধরা পরিবারের অবহেলা, অসুস্থতা ও দারিদ্র্যের কারণে আত্মহননের পথ বেছে নেন।
গত বছরের ২৬ আগস্ট উপজেলা শাঁখারীকাঠি গ্রামের সাথী রানী (২৪) নামের এক গৃহবধূ কীটনাশক পান করে মারা যান। সাথীর মা জ্যোৎস্না রানীর অভিযোগ, মেয়ে জামাই দিপংকর মণ্ডল যৌতুকের জন্য সাথীকে প্রায়ই মারধর করতেন। এ কারণে তাঁর মেয়ে আত্মহত্যা করেন।
২৮ অক্টোবর দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের জাকির হোসেন (২৮) স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে মারা যান।
মঠবাড়িয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ কে এম মিজানুল হক বলেন, আত্মহত্যায় প্ররোচনা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তবে বেশির ভাগ ঘটনায় কেউ অভিযোগ না করায় মামলা হচ্ছে না।
মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মসিউর আলম প্রথম আলোকে বলেন, নিরাশাবাদী ও অবসাদগ্রস্ত মানুষরাই আত্মহত্যা করে থাকেন। মানুষের জীবনে বাধাবিপত্তি থাকবেই। শত প্রতিকূলতার মধ্যেও আত্মবিশ্বাসী মানুষ কখনো আত্মহত্যা করেন না।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন