default-image

রংপুরের বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান হাওলাদারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। জরিমানার নামে এক কৃষকের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় বৃহস্পতিবার রাতেই তাঁকে প্রত্যাহার করে কুড়িগ্রাম পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়।

ওই কৃষকের অভিযোগ ও ঘটনা অনুসন্ধানে জানা গেছে, গত ১৪ এপ্রিল সকাল সাড়ে আটটার দিকে ওই কৃষকের মাটিভর্তি একটি ট্রাক্টর স্থানীয় পাঠানেরহাট এলাকার রাস্তা থেকে আটক করেন এক উপপরিদর্শক। তিনি ট্রাক্টরটি থানায় নিয়ে রাখেন এবং কৃষক ময়নুল হককে ওসির সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন। গত ১০ মে সকালে বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর ওই কৃষককে ফোন করে বলেন—‘অবৈধ বালু পরিবহনের অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতে আপনার ৫০ হাজার টাকা জরিমানা হয়েছে। টাকা থানায় জমা দিয়ে ট্রাক্টর নিয়ে যান।’ ময়নুল হক থানায় গিয়ে ওসির হাতে ৫০ হাজার টাকা তুলে দিয়ে ট্রাক্টর নিয়ে চলে যান।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বৃহস্পতিবার ওই ঘটনায় ওসির শাস্তি চেয়ে ভুক্তভোগী কৃষক পুলিশের মহাপরিদর্শক বরাবর লিখিত অভিযোগ পাঠান। অভিযোগের অনুলিপি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, রংপুরের ডিআইজি, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকেও দেওয়া হয়। রাতেই ওসি হাবিবুরকে বদরগঞ্জ থানা থেকে প্রত্যাহার করে কুড়িগ্রাম পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করার নির্দেশ দেন রংপুরের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য।

বদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, ‘জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ঘটনা অনুসন্ধানের পর নিশ্চিত হয়েছি কৃষক ময়নুল হকের নামে গত মে মাসে ভ্রাম্যমাণ আদালতে কোনো মামলা হয়নি। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন গতকাল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে পাঠিয়েছি।’

রংপুরের পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, ঘটনা জানার পর ওই ওসিকে তাৎক্ষণিক থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। অপরাধ করলে তিনি কোনোভাবেই ছাড় পাবেন না। এখন ঘটনা তদন্ত করে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0