default-image

নাটোরে আদালতে হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শহিদুল ইসলামকে পিটিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। নাটোর শহরের স্টেডিয়াম এলাকায় জেলা মৎস্য অফিসের সামনে আজ মঙ্গলবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে।

বিএনপি এই ঘটনার জন্য জেলা আওয়ামী লীগের কর্মীদের দায়ী করেছে। তবে আওয়ামী লীগ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

আহত বিএনপি নেতা শহিদুল ইসলামের দাবি, মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে একটি মামলায় হাজিরা দিয়ে নাটোর যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে অটোরিকশায় করে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। স্টেডিয়াম এলাকায় জেলা মৎস্য অফিসের সামনে পৌঁছালে চার থেকে পাঁচজন তরুণ দুটি মোটরসাইকেলে করে এসে তাঁর পথ আটকান। এরপর তাঁরা লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে তাঁকে পেটান। হামলার কারণে ডান চোখে দেখতে পারছেন না বলে দাবি করেন শহিদুল। দুর্বৃত্তরা চলে যাওয়ার পর পথচারীরা তাঁকে উদ্ধার করে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে নিয়ে যান। পরে তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার প্রথম আলোকে বলেন, ‘নব্য আওয়ামী লীগের চিহ্নিত কিছু সন্ত্রাসী শহিদুলের ওপর প্রকাশ্যে হামলা চালিয়েছে। শহিদুল আমার সঙ্গেই আদালতে হাজিরা দিয়েছেন। এভাবে আদালতে যাওয়া-আসার পথে যদি আমাদের হামলার শিকার হতে হয়, তাহলে আমরা আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থন করব কীভাবে?’

তবে জেলা আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক আকরামুল ইসলাম এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শহিদুলের ওপর তাঁর দলের কোনো নেতা-কর্মী হামলা চালাননি।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী জালাল উদ্দীন প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। এ ব্যাপারে অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0