default-image

রাজধানীর বনানীতে আড়ংয়ের ওয়াশ রুমে এক নারী বিক্রয় কর্মীর গোপন ভিডিও ধারণের ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়েছেন এক যুবক। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার ক্রাইম ইউনিট গত শনিবার সিরাজুল ইসলাম ওরফে সজীব নামের ওই যুবককে তাঁর শেওড়াপাড়ার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তার হওয়া সিরাজুল ইসলাম আড়ংয়ের এই শাখার সাবেক কর্মী।

এ বিষয়ে সাইবার ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম সোমবার প্রথম আলোকে বলেন, এ বিষয়ে আড়ং স্ব-উদ্যোগে আমাদের কাছে এসে বিষয়টি অবহিত করেছে। তারা আসামির বিষয়ে সব ধরনের তথ্য ও প্রযুক্তিগত সহায়তা করেছে। ইতিমধ্যে আড়ং ওই যুবককে চাকরিচ্যুত করেছে। এ ধরনের ঘটনায় আড়ং দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছে। আসামিকে এক দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

এডিসি নাজমুল ইসলাম বলেন, ওই কর্মীকে গ্রেপ্তারের পর এখন আমরা আরও অতিরিক্ত কিছু তথ্য পেয়েছি। আগে আমরা জানতাম এ ঘটনার ভিকটিম (শিকার) একজন। কিন্তু এখন আমরা জানতে পেরেছি এ ধরনের ঘটনা আরও আছে।

সিরাজুল ইসলাম সজীব নামের ওই যুবক গত ১১ জানুয়ারি রাতে এক তরুণীর ফেসবুক মেসেঞ্জারে শৌচাগারে পোশাক পরিবর্তনের ভিডিও পাঠান। ১৬ জানুয়ারি ওই তরুণী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি করেন।

এ ঘটনায় আড়ংয়ের চিফ অপারেটিং অফিসার আশরাফুল আলম এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, সিরাজুল ইসলাম সজীবের বিরুদ্ধে বনানী আউটলেটের একজন বিক্রয় প্রতিনিধির ১৬ জানুয়ারি বনানী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলার ব্যাপারে আমরা অবহিত আছি। এই মামলাটি দায়ের করার ব্যাপারে অভিযোগকারীকে শুরু থেকেই সর্বাত্মক সহায়তা দিয়ে আসছি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আড়ং যৌন হয়রানিমূলক যেকোনো কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে নীতিগতভাবে সর্বদা কঠোর অবস্থানে থাকে এবং এই ধরনের কর্মকাণ্ডে জড়িত আড়ং সংশ্লিষ্ট যে কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে কঠোর হস্তে দমনের জন্য তৎক্ষণাৎ পদক্ষেপ গ্রহণ করে। চলমান মামলাটির কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার নিমিত্তে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে আমাদের পক্ষ থেকে সার্বিক সহায়তা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0