ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে গত রোববার এক জনসভায় দুষ্কৃতকারীদের ছোড়া পাথরের আঘাতে আওয়ামী লীগের তিন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। ওই সভায় সংরক্ষিত আসনের সাংসদ সেলিনা জাহানও উপস্থিত ছিলেন। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

আহত ব্যক্তিরা হলেন ভোমরাদহ ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্পাদক আবদুল মান্নান, মুক্তিযোদ্ধা সমেশ চন্দ্র রায় ও এক মহিলা কর্মী। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দোকানদার ও জাতীয় পার্টির কর্মী আবু সাদেককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার ভোমরাদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে বিকেল চারটার দিকে সেনুয়া বাজারের পাশে সন্ত্রাস ও নাশকতার বিরুদ্ধে জনমত তৈরিতে সভা হয়। এতে সংরক্ষিত আসনের সাংসদ সেলিনা জাহানসহ আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী বক্তব্য দেন।

মাগরিবের নামাজের পর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক কশিরুল আলম বক্তব্য দেওয়ার সময় দূর থেকে ছুড়ে মারা দুটি পাথর মঞ্চে এসে পড়ে। এরপর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আখতারুল ইসলাম ও ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ইকরামুল হক বক্তব্য দেওয়ার সময় আরও সাত-আটটি পাথর ছোড়া হয়। এতে সামনের সারিতে বসা ওই তিন নেতা-কর্মী আহত হন।

সাংসদ সেলিনা জাহান বলেন, সন্ত্রাসীরা তাঁকে উদ্দেশ করে পাথর ছুড়ে মারলে তা অন্যদের গিয়ে লাগে। তাঁর গাড়িতেও পাথর মারা হয়েছে। পীরগঞ্জ থানার ওসি মকবুল হোসেন বলেন, আবু সাদেককে ১৫১ ধারায় গ্রেপ্তার করে গতকাল সোমবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন