default-image

দিনাজপুর ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তার বাবাকে গুরুতর জখম করার অভিযোগে গ্রেপ্তার দুই যুবলীগ নেতাকে বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় যুবলীগ। বহিষ্কৃতরা হলেন—ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর হোসেন ও সদস্য আসাদুল ইসলাম ।

আজ শুক্রবার বিকেলে যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, যুবলীগ একটি সুশৃঙ্খল সংগঠন। কোনো সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজদের ঠাঁই নেই। যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের নির্দেশে ঘোড়াঘাট ইউএনওর ওপর হামলার ঘটনায় আটক যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর হোসেন ও আসাদুল ইসলামকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এই বিষয়ে দপ্তর থেকে বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হবে। তবে এখন সিদ্ধান্তটা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ইউএনও এর ওপর হামলার পর আজ ভোর পাঁচটার দিকে র‍্যাব ও পুলিশের যৌথ অভিযানে জাহাঙ্গীর হোসেন ও আসাদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জাহাঙ্গীর ২০১৭ সাল থেকে ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করছেন। এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে দিনাজপুর-৬ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ শিবলী সাদিক বলেন, ‘জাহাঙ্গীর বেপরোয়া টাইপের । কিছুদিন আগে আমার ওপরও হামলার চেষ্টা করেছিলেন।’

গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বিরামপুর, হাকিমপুর ও ঘোড়াঘাট থানার পুলিশের একটি দল আজ ভোর পৌনে পাঁচটার দিকে হাকিমপুর উপজেলার কালিগঞ্জ এলাকায় বোনের বাসা থেকে আটক করে আসাদুলকে । তাঁকে রংপুর রেঞ্জের অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়।
অন্যদিকে, দিনাজপুরের র‍্যাবের সদস্যরা জাহাঙ্গীর হোসেনকে তাঁর নিজ বাসা থেকে আটক করেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন