default-image

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় করা মামলায় আজ বুধবার জামিন নিয়ে কারাগার থেকে মুক্ত হয়েছেন ঢাকা-৭ আসনের সরকারি দল আওয়ামী লীগের সাংসদ হাজী মো. সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিম।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহাবুবুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালতের জামিনের কাগজপত্র কারাগারে পৌঁছানোর পর বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে তিনি কারামুক্ত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের ২৫ অক্টোবর রাজধানীর কলাবাগান থানা এলাকায় নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান মোটরসাইকেলে করে যাচ্ছিলেন। এ সময় ইরফান সেলিমের গাড়িটি তাঁকে ধাক্কা দেয়। তিনি পরিচয় দিলেও আসামি গাড়ি থেকে নেমে তাঁকে কিল-ঘুষি মারেন এবং মেরে ফেলার হুমকি দেন। এ সময় মোটরসাইকেলে থাকা ওয়াসিফের স্ত্রীকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করা হয়। ওই ঘটনায় ওয়াসিফ আহমদ খান বাদী হয়ে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন। পরে ইরফানকে তাঁর বাসা থেকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারের ঘটনায় পরে রাজধানীর চকবাজার থানায় অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ইরফান ও তাঁর সহযোগী জাহিদের বিরুদ্ধে পৃথকভাবে চারটি মামলা করে র‍্যাব। বাসায় অবৈধভাবে মদ ও ওয়াকিটকি রাখার অভিযোগে করা মাদক মামলায় এক বছর এবং ওয়াকিটকি মামলায় হাজি সেলিমের পুত্রকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ইরফানের বিরুদ্ধে পাঁচটি মামলা ছিল। ভ্রাম্যমাণ আদালতের সাজার দুই মামলায় ইরফান নিম্ন আদালত থেকে আগেই জামিন পান। এ ছাড়া মাদক ও অস্ত্র আইনে করা দুই মামলায় তাঁকে অব্যাহতি দিয়ে প্রতিবেদন দেন তদন্ত কর্মকর্তা। সর্বশেষ মারধরের মামলায় তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন পান। আপিল বিভাগ জামিন বহাল রাখেন।

ইরফান সেলিম ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন। গত ২৭ অক্টোবর কাউন্সিলর পদ থেকে তাঁকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন