বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহারে বলা হয়, ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে নগরের হালিশহরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে ঈদ বস্ত্র মেলায় কিশোরদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়। এই ঘটনার জেরে দুই দল কিশোর ঈদগাঁ কাঁচারাস্তার মোড় এলাকায় জড়ো হয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে এক কিশোর বন্ধু ফাহিমকে ডেকে ঈদগাঁ কাঁচারাস্তার মোড়ে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে ফাহিমকে ছুরিকাঘাত করা হয়। ছুরিকাঘাতে সে মারা যায়।

পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঘটনার পরদিন মো. মামুন (১৯) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এক কিশোরকে গতকাল কিশোরগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই কিশোরই ফাহিমকে ছুরিকাঘাত করেছিল বলে অভিযোগ আছে।

নগর পুলিশের উপকমিশনার (পশ্চিম) মো. আবদুল ওয়ারিশ প্রথম আলোকে বলেন, গ্রেপ্তার কিশোরের তথ্যের ভিত্তিতে তাঁর এক বন্ধুর বাসা থেকে একটি রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করা হয়। ফাহিম হত্যায় এ ছুরি ব্যবহৃত হয়েছে বলে জানিয়েছে গ্রেপ্তার কিশোর। তিনি ছুরিকাঘাতের কথা স্বীকার করেছেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন