ওভার ব্রিজ ব্যবহার না করলে জেল-জরিমানা

বিজ্ঞাপন
default-image

রাজধানীর ফুটওভার ব্রিজ ও আন্ডারপাস ব্যবহার না করে সড়ক পারাপারে শাস্তির বিধান আসছে। বসানো হচ্ছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
রাজধানীর রূপসী বাংলা হোটেলের মোড় থেকে ফার্মগেট পুলিশ বক্স পর্যন্ত সড়কে প্রাথমিকভাবে ২৫ নভেম্বর থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসবেন।
এ সময় এই এলাকায় যাঁরা ফুটওভার ব্রিজ ও আন্ডারপাস ব্যবহার না করে সড়ক পার হবেন, তাঁদের ২০০ টাকা করে জরিমানা করা হবে বা ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হবে।
আজ শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার বেনজীর আহমেদ এসব তথ্য জানান। রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপির তথ্যকেন্দ্রে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।
ভ্রাম্যমাণ আদালত বসানো প্রসঙ্গে বেনজীর আহমেদ বলেন, নাগরিকেরা যাতে রাস্তা চলাচলের ক্ষেত্রে সচেতন হন, সে জন্য এটা প্রতীকীভাবে করা হচ্ছে। ফুটওভার ব্রিজ ও আন্ডারপাস ব্যবহারে রাজধানীবাসীকে সচেতন করতে তিন দিন ব্যানার, প্রচারপত্রসহ নানাভাবে প্রচার চালাবে পুলিশ।
রূপসী বাংলা হোটেলের মোড় থেকে ফার্মগেট পুলিশ বক্স পর্যন্ত সড়কে ২৫ নভেম্বর থেকে টানা সাত দিন ভ্রাম্যমাণ আদালত বসবে বলে প্রথম আলোকে জানিয়েছেন ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (ট্রাফিক) মোসলেহ উদ্দিন আহমদ।
ডিএমপি কমিশনার বেনজীর আহমেদ স্বীকার করেন, ঢাকা শহরের সড়কে বিশৃঙ্খলা চলছে। লাইসেন্সবিহীন গাড়ি ও চালকদের অদক্ষতার কারণে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে। আবার ফুটওভার ব্রিজ ও আন্ডারপাস থাকা সত্ত্বেও নাগরিকেরা খুশিমতো যেখান দিয়ে ইচ্ছা রাস্তা পারাপার হচ্ছেন। এতে যানজটের পাশাপাশি সড়কে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হচ্ছে। সড়ক দুর্ঘটনায় মানুষ মারাও যাচ্ছে।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঢাকার মতো মেগা সিটিতে শুধু পুলিশ দিয়ে এই অবস্থা ও বিশৃঙ্খলা দূর করা সম্ভব নয়। এ ব্যাপারে নাগরিকদের সচেতন ও দায়িত্বশীল হতে হবে।
বনানীর মতো সব ফুটওভার ব্রিজে চলন্ত সিঁড়ি বসাতে ডিএমপির পক্ষ ঢাকা সিটি করপোরেশনকে পরামর্শ দেওয়া হবে বলে জানান বেনজীর আহমেদ। এ ক্ষেত্রে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন