default-image

বরগুনার পাথরঘাটায় বিয়েবাড়িতে বর ও কনেপক্ষের হাতাহাতিতে বর বেলাল হোসেনসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। কনে রাবেয়া আক্তারকে দ্রুত সাজিয়ে দিতে বরপক্ষের তাড়া দেওয়ার একপর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত দুজনকে খুলনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে পাথরঘাটার রূহিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

বর বেলাল হোসেনের (২৬) বাড়ি বাগেরহাটের মোংলার রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ সড়কে।

পাথরঘাটা সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য আবুবকর সিদ্দিক ও পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাবুদ্দিন এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পাথরঘাটা সদর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান মোল্লা বলেন, মূলত ভুল বোঝাবুঝি থেকে এই হাতাহাতির ঘটনা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পাথরঘাটার মোফাজ্জেল হাওলাদারের মেয়ে রাবেয়া আক্তারের বিয়ে হয় গতকাল দুপুরে। মোংলা থেকে আসা বরপক্ষের লোকজন খাবার শেষে কনেকে দ্রুত বউ সাজিয়ে দিতে তাড়া দেন। কনেপক্ষ থেকে জানানো হয়, স্থানীয় লোকজনের খাবার শেষে কনেকে বউ সাজিয়ে দেওয়া হবে। এ নিয়ে কনেপক্ষের সঙ্গে বরপক্ষের বাগ্‌বিতণ্ডা হয় এবং হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হন।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাবুদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কেউ থানায় অভিযোগ করেনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0