তবে ওই কর্মকর্তা পলাতক থাকলেও তাঁর স্ত্রীকে পাবনার হিমাইতপুর থেকে গতকাল শনিবার গ্রেপ্তার করেছে চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানা-পুলিশ। ওই দিন রাতে তাঁকে চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হয়। আজ রোববার আদালত তাঁকে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

কোতোয়ালি থানা-পুলিশের তথ্য অনুযায়ী, ফারুক হোসেন নামের ওই ব্যক্তি ওয়ালটনের চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক। তিনি মূল্যছাড়ে পণ্য দেওয়ার কথা বলে চট্টগ্রামের পরিবেশকদের কাছ থেকে প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। টাকা নেওয়ার পর তাঁর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে ওয়ালটন গত ২২ এপ্রিল চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানায় মামলা করে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবীর প্রথম আলোকে বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ফারুক হোসেনের অবস্থান শনাক্ত করা হয়। এরপর পাবনা সদর থানার সহযোগিতায় হিমাইতপুরে অভিযান চালায় পুলিশ। সেখানে ফারুক হোসেনকে পাওয়া না গেলেও স্ত্রী নূরজাহান বেগমকে পাওয়া যায়। তখন তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওসি বলেন, নূরজাহানের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তাঁদের ঘরের কোনায় মাটি খুঁড়ে একটি কলসি ও একটি টিনের জার পাওয়া যায়। ওই পাত্র দুটিতে ছিল ৩২ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। বাকি টাকা ফারুকের কাছে রয়েছে বলে জানান নূরজাহান। এখন ফারুকের খোঁজ করা হচ্ছে। অভিযানের সময় একটি ল্যাপটপ ও একটি মুঠোফোন জব্দ করা হয়।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন