default-image

বগুড়ার কাহালুতে নিখোঁজের ১১ ঘণ্টার মাথায় আরমান হোসেন (১৮) নামের এক কলেজছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার রাতে বন্ধুর সঙ্গে দেখা করার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন আরমান। সোমবার সকালে স্থানীয় একটি কবরস্থান থেকে মাটিচাপা দেওয়া অবস্থায় তাঁর লাশ উদ্ধার হয়।

আরমান কাহালু উপজেলার মুরইল ইউনিয়নের ডমরগ্রামের আজিজার রহমান প্রামাণিকের ছেলে। তিনি গাইবান্ধা সরকারি কৃষি ডিপ্লোমা কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন। এ ঘটনায় পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করেছে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রোববার রাত সাড়ে আটটার দিকে সুজন নামের এক বন্ধুর সঙ্গে দেখা করার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন আরমান।

রাতে তিনি বাড়ি না ফিরলে স্বজনেরা খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। সকালে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে গ্রামের একটি পুকুরপাড়ের কবরস্থানে আলগা মাটি দেখে সন্দেহ হয়। এরপর পুলিশকে খবর দেন স্বজনেরা। থানা থেকে পুলিশ গিয়ে সেখান থেকে আরমানের লাশ উদ্ধার করে।

বিজ্ঞাপন

কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় আরমানকে। পরে লাশ গুম করতে ওই স্থানে মাটিচাপা দেওয়া হয়েছিল। এই হত্যাকাণ্ডের কারণ বা কারা এতে জড়িত, তা এখনো জানা যায়নি।

ওসি লতিফুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহত কলেজছাত্রের বাবা আজিজার রহমান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0