ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা পৌর শহরের পুরাতন বাজারে গত মঙ্গলবার এক শিশুকে (৭) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার থানায় মামলা হয়েছে। শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
মামলার এজাহার, স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পৌর এলাকার বগাবাড়ি গ্রামের কিবরিয়া (১৮) পুরাতন বাজারে আলু বাছাইয়ের কাজ করে। ওই শিশুর মাও প্রতিদিন ওই বাজারে আলু বাছাইয়ের কাজ করেন। মঙ্গলবার সকালে শিশুটি মায়ের সঙ্গে বাজারে আসে। দুপুরে কিবরিয়া ওই শিশুকে আলু দেওয়ার কথা বলে গুদামে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে কিবরিয়া পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুহাম্মদ আরিফুল ইসলাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে শিশুটিকে দেখে পুলিশকে খবর দেন। শিশুটির শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বিকেলে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে কিবরিয়ার বিরুদ্ধে গতকাল দুপুরে ধর্ষণের মামলা করেছেন।
হাসপাতালে শিশুটির মা কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘মেয়েটি আমার সঙ্গে বাজারে এসে আলু বাছে। ছেলেটি আলু দেবে বলে গোডাউনে নিয়ে জোর করে তাকে ধর্ষণ করে।’
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) এম আর মামুনুর রহমান জানান, প্রাথমিক তদন্তে ধর্ষণের কিছু আলামত রয়েছে। গাইনি বিভাগের চিকিৎসক ডাক্তারি পরীক্ষা করলে প্রকৃত তথ্য বের হয়ে আসবে।
কসবা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মহি উদ্দিন প্রথম আলোকে জানান, কিবরিয়াকে প্রধান আসামি করে শিশুটির বাবা মামলা করেছেন। শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হবে। ওই ছেলেকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন