কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হররা মেটন গ্রামে গতকাল শুক্রবার রাতে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়েছেন। তাঁর নাম রফিকুল ইসলাম (৪৫)। তাঁর বাড়ি একই উপজেলার হরিপুর গ্রামে।

পুলিশ বলছে, দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পরে রফিকুলের লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিনের ভাষ্য, গতকাল দিবাগত রাত একটার দিকে পুলিশ জানতে পারে যে হররা মেটন গ্রামের বালুর মাঠে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলি চলছে। দ্রুত সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের ওপর গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষায় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। একপর্যায়ে মাদক কারবারিরা পিছু হটলে পুলিশ ঘটনাস্থল তল্লাশি করে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। তাঁকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। লাশটি রফিকুল ইসলামের বলে শনাক্ত করা হয়।

ওসির দাবি, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ২টি গুলি ও ৩৮০টি ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের একই হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। রফিকুলের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধে ৭ থেকে ৮টি মামলা আছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0