কুমিল্লার হোমনা উপজেলায় তিতাস নদ থেকে অবৈধভাবে বালু তোলার খননযন্ত্র (শ্যালোচালিত ইঞ্জিন) গুঁড়িয়ে দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। গত শুক্রবার বিকেলে ইউএনও আহাম্মেদ জামিলের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়।
এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কৃপারামপুর গ্রামের মো. ইব্রাহীমের নেতৃত্বে দুই সপ্তাহ ধরে তিতাস নদ থেকে খননযন্ত্র দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এতে নদের পাশে নিচু জমিতে ভাঙনের সৃষ্টি হয়ে অন্তত অর্ধশত বিঘা জমি নদে বিলীন এবং কাশীপুর-কৃপারামপুর সড়কের দুই কিলোমিটার ও কৃপারামপুর গ্রাম ভাঙনের হুমকির মুখে পড়েছে।
আবদুল বাতেন নামের এক গ্রামবাসী অভিযোগ করে বলেন, ‘বালু তোলতে বাধা দিলে ইব্রাহীম মিয়ার লোকজন আমাগোরে গালিগালাজ করে আর মাইরা ফাইব কইরা হুমকি দেয়। দুই সপ্তা ধইরা ইব্রাহীমের লোকজন বালু তোলতাছে।’
সরেজমিনে শুক্রবার কৃপারামপুর গ্রামে দেখা যায়, এই গ্রামের হাজি ব্রিকসের প্রায় চার শ মিটার পূর্বে ও নির্মাণাধীন কৃপারামপুর মসজিদসংলগ্ন নদে বালু তোলার জন্য খননযন্ত্র বসানো রয়েছে।
ইউএনও আহাম্মেদ জামিল বলেন, নদে বসানো খননযন্ত্র ও পাইপ ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। অভিযুক্ত ইব্রাহীমের বাড়িতে গিয়ে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তাঁর ঘরে তালা ঝুলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0