default-image

কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলায় ছিনতাই হওয়া আট কেজি গাঁজা উদ্ধার করতে গিয়ে পুলিশের সদস্যরা লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রোববার চারজনকে অভিযুক্ত করে ভৈরব থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।

অভিযুক্ত আসামিরা হলেন শফিক মিয়া (৩৮), আল আমিন (৩৫), রায়হান মিয়া (৩২) ও মান্না মিয়া (৩০)। তাঁরা পৌর শহরের চন্ডিবের মধ্যপাড়ার বাসিন্দা। তবে পুলিশ এখন পর্যন্ত অভিযুক্ত ব্যক্তিদের কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, অভিযুক্ত আসামিরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মাদক ব্যবসা করে আসছিলেন। গত শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে শফিকের বাড়ির সামনে দিয়ে গাঁজার চালান নিয়ে যাচ্ছিলেন এক ব্যক্তি। চালানটি নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল পৌর শহরের কালিপুর এলাকায়। তখন শফিক তাঁর লোকজন নিয়ে ওই ব্যক্তির কাছ থেকে গাঁজা রেখে দেন। এই খবর পেয়ে ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহিনের নির্দেশে গাঁজা উদ্ধার অভিযানে যান উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মতিউজ্জামান, গৌতম সেন ও দেলোয়ার হোসেন। গাঁজার খোঁজ জানতে চাইলে শফিক ক্ষুব্ধ হন। একপর্যায়ে রায়হান দা হাতে নিয়ে পুলিশের ওই সদস্যদের ওপর হামলার চেষ্টা করেন। এমন পরিস্থিতিতে পুলিশের সদস্যরা গাঁজা উদ্ধার না করেই থানায় ফিরে যান।

বিজ্ঞাপন

ওই দিনের ঘটনা জানতে চাইলে এসআই মতিউজ্জামান বলেন, শফিক ও তাঁর লোকজন মিলে আট কেজি গাঁজা ছিনতাই করেছেন। মূলত ছিনতাই হয়ে যাওয়া গাঁজা উদ্ধার করতে গিয়ে তাঁরা রোষানলে পড়েন। অভিযুক্ত ব্যক্তিরা এলাকায় চিহ্নিত অপরাধী ও মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। তাঁদের বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় মামলাও আছে।

মামলার বাদী এসআই গৌতম সেন বলেন, সরকারি কাজে বাধা ও হুমকি দেওয়ার অভিযোগে মামলাটি করা হয়েছে। অপরাধীদের বাধার মুখে গাঁজা উদ্ধার না করেই তাঁদের ফিরে আসতে হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হানিফ সরকার বলেন, ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা আড়ালে চলে গেছেন। সেই কারণে ধরা যাচ্ছে না। তবে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0