গাজীপুরে পুলিশ পরিচয়ে ডেকে তুলে ৭ দোকানে ডাকাতি

বিজ্ঞাপন
default-image

গাজীপুরের কালীগঞ্জে পুলিশ পরিচয়ে পাঁচটি স্বর্ণের দোকানসহ সাতটি দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সোমবার রাতে উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের উলুখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ২০০ গজ দূরত্বে বাজার এলাকায় এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

উলুখোলা বাজারের ব্যবসায়ীরা বলেন, পাঁচটি দোকান থেকে প্রায় ৫৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও ৩৪০ ভরি রুপা লুট করেছে ডাকাত দল। এ ছাড়া ৭টি দোকান ও একটি মুরগির পিকআপ ভ্যান থেকে ২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে তারা।

বাজারের নিরাপত্তাপ্রহরীদের বরাত দিয়ে নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য বাবলু গাব্রিয়েল রোজারিও বলেন, গতকাল দিবাগত রাত দুইটার দিকে পুলিশের পোশাক পরিহিত ৩০ থেকে ৪০ জনের একটি ডাকাত দল বাজারে প্রবেশ করে। তারা প্রথমে বাজারে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সাত প্রহরীকে বাজারের একটি দোকানে আটকে রাখে। পরে বাজারের প্রতিটি প্রবেশরাস্তায় নিজেদের লোক দিয়ে পাহারা বসায়। এরপর একে একে ৫টি জুয়েলারি দোকান, চা ও মুরগির দোকানে ডাকাতি করে পালিয়ে যায়।

নারায়ণ চন্দ্র রায় মালিকানাধীন রাজীব জুয়েলার্সের এক কর্মচারী বলেন, রাত আনুমানিক দুইটার দিকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে দোকানের সাটার খুলতে বলে ডাকাতেরা। বাজারের প্রায় ২০০ গজ দূরত্বে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ি। পুলিশ সদস্য মনে করে দোকানের সাটার খুলে দেন। সামনে ১২-১৩ জন লোক। তাদের মধ্যে ৬-৭ জনের গায়ে পুলিশের পোশাক। তাদের হাতে ওয়্যারলেস ও অস্ত্র। অন্যদের শরীরে কালো পোশাক ও মুখোশ পরা। পরে ডাকাতেরা তাঁকে বেঁধে সাতজন নিরাপত্তাপ্রহরীর সঙ্গে আটকে রাখেন।

সন্দীপ জুয়েলার্সের মালিক সুকান্ত বলেন, ‘বাজারের এত কাছে পুলিশ ফাঁড়ি। কিন্তু ডাকাতির এমন ঘটনা আমাদের বিস্মিত করেছে। আমরা একেবারে সর্বস্বান্ত হয়ে গেলাম। রাস্তায় বসা ছাড়া আমাদের আর কোনো উপায় নেই।’

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুল হক বলেন, ডাকাতদের গ্রেপ্তার এবং লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন