গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাইনবোর্ড এলাকায় যাত্রীবাহী একটি বাসে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় বোমার আগুনে অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন বাসের দুই যাত্রী।

দগ্ধ ব্যক্তিরা হলেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কলমেশ্বর এলাকার সাহিদা ইয়াসমিন ও কালিয়াকৈর উপজেলার পূর্ব চান্দরা এলাকার বাবুল হোসেন। এঁদের মধ্যে বাবুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

আহত সাহিদার চাচাতো ভাই লুৎফর রহমান বলেন, সাহিদা বাপের বাড়ি কলমেশ্বর এলাকা থেকে স্বামীর বাড়ি শ্রীপুর উপজেলার মাওনায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসে ওঠেন। বাসটি সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে সাইনবোর্ড এলাকায় পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা বাসটিতে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে। পরে এলাকাবাসী দ্রুত আগুন নিভিয়ে ফেলেন। এ সময় বোমার আগুনে ওই দুজন দগ্ধ হন। বোন আহত হওয়ার খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে যান এবং তাঁকে তায়রুন্নেছা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। স্থানীয়রা বাবুলকে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে পাঠান।

টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক নূসরাত জাহান জানান, পেট্রলবোমায় বাবুলের মাথা, মুখ ও পিঠ পুড়ে গেছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার রেজাউল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘পেট্রলবোমার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।’

তবে জয়দেবপুর থানার উপপরিদর্শক আবুল হাশেম বলেন, ‘সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে বাসে নাশকতার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে বাসটি পাইনি। তবে দুর্বৃত্তের ছোড়া বোমার আঘাতে দুই যাত্রী আহত হওয়ার খবর শুনেছি। তবে ককটেল না পেট্রলবোমা, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন