রাজধানীর শাহ আলী থানার নবাবেরবাগের একটি বাসা থেকে গত মঙ্গলবার রাতে টপি আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাঁর গলায় গামছা প্যঁাচানো ছিল। এ ছাড়া রাজধানীতে দুজনের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে।
পুলিশের প্রাথমিক ধারণা, গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে গৃহবধূ টপিকে হত্যার পর স্বামী মো. মমিন পালিয়েছে। মমিন পেশায় দরজি।
পুলিশ জানায়, টপি তাঁর স্বামীর সঙ্গে নবাবেরবাগের দক্ষিণপাড়ায় ভাড়া থাকতেন। স্থানীয় ব্যক্তিদের কাছে খুনের খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ দক্ষিণপাড়ার বাসিন্দা মোমিনের বাসার তালা ভেঙে ভেতরে ঢোকে। এ সময় তারা টপিকে খাটের ওপর মৃত অবস্থায় পায়। পরে পুলিশ তাঁর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায়। টপির গ্রামের বাড়ি নওগাঁর সদর উপজেলার পারডাঙ্গার শৈলগাঠিতে।
শাহ আলী থানার ওসি সেলিমুজ্জামান বলেন, গৃহবধূর চাচা টপির স্বামী ও স্বামীর ভাইকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন।
দুজনের অস্বাভাবিক মৃত্যু: গতকাল ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে উত্তরার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) কার্যালয়ের কাছে চলন্ত একটি ট্রেনে ওঠার সময় পা ফসকে নিচে পড়ে প্রাণ হারান এক নারী। তাঁর পরিচয় পাওয়া যায়নি।
গতকাল দুপুরে পুলিশ উত্তর গোড়ানের একটি বাসা থেকে আরিফ হোসেন (১৫) নামে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। সে আবাসিক হোটেলের কর্মী ছিল।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন