রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে পূর্ববিরোধের জের ধরে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কয়েক দফা সংঘর্ষে সাতজন আহত হয়েছে। ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে এ বিরোধের সূত্রপাত হয়।
স্থানীয় কয়েকজন জানান, প্রায় চার মাস আগে উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের অম্বলপুর ও পাশের কাটাখালী এমএস ক্লাবের মধ্যে ফুটবল খেলা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার বিকেলে কাটাখালী এলাকার বাসিন্দা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ চৌধুরীকে (৩২) মারধর করেন কয়েকজন যুবক। এ সময় তিনি রিকশায় চড়ে অম্বলপুর হয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এ খবরে কাটাখালীর লোকজন একজোট হয়ে এগিয়ে এলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ভাঙচুর হয়।
ছাত্রলীগের নেতা আসাদ চৌধুরী অভিযোগ করেন, অম্বলপুরের বাচ্চুর নেতৃত্বে শরীফ, এনায়েত, জনিসহ সাত-আটজন যুবক পথে তাঁকে মারধর করে। খবর পেয়ে তাঁর এলাকাবাসী প্রতিবাদ জানান।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন এনায়েত হোসেন, এনায়েতের মা সালেহা বেগম অভিযোগ করেন, কয়েক মাস আগে ফুটবল খেলা নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা আসাদকে মারধরের ঘটনায় তাঁদের পরিবারের কেউ জড়িত না। অথচ ছাত্রলীগ নেতা আসাদের নেতৃত্বে লোকজন তাঁদের পরিবারের সদস্যদের মারধর ও বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে লুটপাট করেছে। ঘরে থাকা দুটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও অম্বলপুর মোড়ে এনায়েতের বড় ভাই ইউনুছের মুদি দোকানেও হামলা করা হয়। তাঁদের মারধরে অন্তত আটজন গুরুতর আহত হন।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন