default-image

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় প্রথম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। ওই মামলায় সোহেল রানা (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে আলমডাঙ্গা থানার পুলিশ গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ৪ নভেম্বর বিকেলে ওই শিশু প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে নিজেদের বাড়িতে ফিরছিল। এ সময় সোহেল রানা শিশুটিকে চকলেট খাওয়ার জন্য হাতে চার টাকা দেন। পরে ঘুঘু দেখানোর কথা বলে একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। বিষয়টি কাউকে জানালে তাকে ও তার মাকে মেরে ফেলা হবে বলে ভয় দেখান তিনি। ভয়ে শিশুটি বাড়িতে গিয়ে কাউকে কিছু জানায়নি। কিন্তু পরের দিন শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে মাকে সব খুলে বলে।

শিশুটিকে গতকাল চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে শিশুটি সেখানেই চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় ধর্ষণের অভিযোগে শিশুটির চাচা বাদী হয়ে গতকাল দুপুরে আলমডাঙ্গা থানায় একটি মামলা করেন। সদর হাসপাতালে শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। থানায় মামলা দায়েরের পর আলমডাঙ্গা থানার পুলিশ সন্ধ্যায় সোহেলকে গ্রেপ্তার করে।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবির এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেপ্তার সোহেল রানাকে আজ রোববার আদালতে সোপর্দ করা হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0