ঘুষ লেনদেনের সময় হাত স্যানিটাইজ করে নিলেন ওসি

বিজ্ঞাপন
default-image

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ আলমের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, একটি মারামারির ঘটনায় বাদীপক্ষকে ফাঁসাতে তিনি আসামিপক্ষকে পরামর্শ দিয়ে ১০ হাজার টাকা ঘুষ নেন, সেটাই ওই ভিডিওতে দেখা যায়।

লালমনিরহাট জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জেলার পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা বুধবার দুপুরে প্রথম আলোকে জানান।

লালমনিরহাট সদর থানার ওসি মাহফুজ আলম ও সুবিধাপ্রত্যাশী মারামারি মামলার আসামি ঘুষ প্রদানকারীদের মধ্যে হওয়া ৫ মিনিট ৪৩ সেকেন্ডের একটি ভিডিও আছে। এ ছাড়া ওসির সঙ্গে দেনদরবার করতে যাওয়া অপর একটি পক্ষের মধ্যে হওয়া ১৭ মিনিট স্হায়ী একটি অডিও রেকর্ড এই প্রতিবেদকের কাছে আছে।

ওই ভিডিও আলাপনে শোনা ও দেখা যায়, ওসি মাহফুজ আলম তাঁর অফিসকক্ষে মারামারির মামলায় প্রধান অভিযুক্তকে বাদীপক্ষের বিরুদ্ধে কখন কী মামলা করতে হবে, কীভাবে শায়েস্তা করতে হবে; সে বিষয় পরামর্শ দিচ্ছেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে টাকা দিতে বলছেন। টাকাপয়সা লেনদেন–সংক্রান্ত প্রেক্ষাপটে ওসি হ্যান্ড সানিটাইজার দিয়ে নিজের এবং ঘুষদাতার হাত সানিটাইজ করে নেন।

এ ব্যাপারে ওসি বুধবার বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, মামলার বিষয় নিয়ে অনেকে পরামর্শ করতে আসেন। ঈদের আগেও এসেছেন। ভিডিওতে ১০ হাজার টাকা ঘুষ নেওয়ার বিষয় আছে—জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে ওই ভিডিও গোপনে ধারণ করা হয়েছে।’

লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার প্রথম আলোকে বলেন, ‘এ ব্যাপারে লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলেছি।’ এ বিষয়ে তিনি আর কিছু বলতে চাননি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন