কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরসভার চিরিঙ্গা-বাঘগুজারা সড়কের আমানপাড়া এলাকায় গতকাল সোমবার ভোরে ডাকাত সন্দেহে তিনজনকে পিটুনি দিয়েছে জনতা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ডাকাতির খবর পেয়ে গতকাল ভোরে স্থানীয় জনতা ডাকাতদের ঘিরে ফেলে। এ সময় ডাকাতেরা জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে গুলি ছোড়ে। এতে আমির হোসেন (৫৫) নামের একজন গুলিবিদ্ধ হন। পরে স্থানীয় লোকজন আরও সংগঠিত হয়ে তিন ডাকাতকে ধরে ফেলে। এ সময় জনতার পিটুনিতে ওই তিনজন আহত হয়। অন্য ডাকাতেরা পালিয়ে যায়।

পিটুনিতে আহত ব্যক্তিরা হলেন আবদুল জব্বার (৩৫), রোকন উদ্দিন (২৫) ও আবুল কাশেম (৩৫)। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত তিনজনকে আটক করে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দুটি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। এরপর সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নুর মোহাম্মদ (৪০) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে। গণপিটুনিতে আহত তিনজন ও গুলিতে আহত ব্যক্তিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় লোকজনের দাবি, ডাকাতেরা সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সাত থেকে আটটি গাড়িতে ডাকাতি করে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর বলেন, চার ডাকাতকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুটি মামলা করা হয়েছে।

ওসির দাবি, ১০-১২ জন ব্যক্তি ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল, এমন খবর পেয়েই স্থানীয় লোকজন ওই তিন ব্যক্তিকে ধরে পিটুনি দেয়। ডাকাতেরা কোনো গাড়ি বা বাড়িতে ডাকাতির সুযোগ পায়নি।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন