চট্টগ্রামের উড়ালসড়কে আবারও ছিনতাই

বিজ্ঞাপন

চট্টগ্রামের উড়ালসড়কে এবার গরু কিনতে যাওয়া এক চিকিৎসকের দুই লাখ নয় হাজার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার দিকে নগরের আক্তারুজ্জামান চৌধুরী উড়ালসড়কের ২ নম্বর গেট এলাকায় এই ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। 

আজ রাত আটটা পর্যন্ত ছিনতাই হওয়া টাকাগুলো উদ্ধার হয়নি।
ঘটনার শিকার চিকিৎসক ইব্রাহীম পিনটু প্রথম আলোকে বলেন, নগরের চান্দগাঁওয়ের বাসা থেকে সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে নিউ মার্কেটের দিকে যাচ্ছিলেন। বহদ্দারহাট আসার পর সিএনজিচালক তাঁকে উড়ালসড়ক দিয়ে যাওয়ার কথা জানান। তিনি বারণ করেননি। গাড়িটি উড়ালসড়কের ২ নম্বর গেট পার হওয়ার পরপরই চালক হঠাৎ গাড়িটি থামিয়ে দেন। কি হয়েছে জানতে চাইলে বলেন গাড়ি নষ্ট হয়েছে। এক পর্যায়ে তাকে গাড়ি থেকে নামতে বলেন। তিনি কারণ জিজ্ঞেস করলে বলেন, গাড়িতে কাজ আছে।
ইব্রাহীম পিনটু আরও বলেন, তিনি গাড়ি থেকে নামার পরপরই দুটি মোটরসাইকেল করে তিন যুবক এসে তার সামনে দাঁড়ায়। তারা উড়ালসড়কে কেন দাঁড়িয়ে আছেন তার কাছে কারণ জানতে চান। এক পর্যায়ে ওই সিএনজিতে তাকে জোর করে তুলে নেন মোটরসাইকেলে থাকা দুই যুবক। তার সঙ্গে থাকা ২ লাখ ৯ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেন। পরে গাড়িটি চলে যায়।
তাৎক্ষণিকভাবে তিনি বিষয়টি পাঁচলাইশ থানা-পুলিশকে জানান। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে জড়িতদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করে। তবে কাউকে এখনো ধরা যায়নি। এই ঘটনায় তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
চিকিৎসক ইব্রাহীম পিনটু বলেন, এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা কোরবানির গরু কেনার জন্য। বাকি টাকা কেনাকাটার। একটি খামার থেকে গরুগুলো তারা কিনেছেন। যাচ্ছিলেন টাকা পরিশোধ করতে।
জানতে চাইলে নগর পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক রাতে প্রথম আলোকে বলেন, জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
গত শনিবার প্রথম আলোয় ‘‌উড়ালসড়কে রশি বেঁধে ছিনতাই’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়, ফেব্রুয়ারির পর গত ছয় মাসে ৫০টি মতো ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। এরপর ঢাকা থেকে র‍্যাবের গোয়েন্দা শাখার একটি দল চট্টগ্রাম এসে তদন্ত করে। তারা ছয় ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করে। পরে পাঁচলাইশ থানা-পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। এরপরও থেমে নেই ছিনতাই।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন