গতকাল সোমবার দুপুরে ১৫ মিনিটের মধ্যে নগরের দুটি এলাকায় নাশকতা চালায় দুর্বৃত্তরা। এসব ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। তবে নগরের অন্য এলাকায় সহিংসতার কোনো খবর পাওয়া যায়নি। হরতাল-অবরোধে স্বাভাবিক ছিল যান চলাচল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল বেলা একটার দিকে তিন-চারজন যুবক দিদার মার্কেট এলাকায় তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় তারা মিনিবাসে (তরি) পাথর ছুড়ে মারে। পাথরের আঘাতে মিনিবাসের কাচ ভেঙে জানালার পাশে বসা যাত্রী নাছির উদ্দিন চৌধুরী মাথায় আঘাত পান। পালিয়ে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তরা সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও একটি প্রাইভেট কারের কাচও ভাঙচুর করে।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মহিউদ্দিন সেলিম প্রথম আলোকে জানান, দিদার মার্কেট এলাকায় একটি মিনিবাস লক্ষ্য করে পাথর ছুড়ে মারে হরতাল সমর্থনকারীরা। এতে নাছির উদ্দিন চৌধুরী (৫৬) নামের এক বাসযাত্রী আহত হন। তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি নগরের চকবাজার এলাকার বাসিন্দা। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানান ওসি।

প্রায় একই সময় নগরের চান্দগাঁও মৌলভীপুকুরপাড় এলাকায় একটি মিনিবাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।

চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রউফ বলেন, পেট্রলপাম্পের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মিনিবাসটিতে আগুন দেওয়া হলেও কোনো যাত্রী না থাকায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন